Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৩:৩৮ ঢাকা, শুক্রবার  ১৬ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

তুষারপাতে ঢাকা পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের পূর্বাঞ্চল : ৭ হাজারেরও বেশি ফ্লাইট বাতিল

যুক্তরাষ্ট্রের পূর্বাঞ্চল প্রবল তুষারঝড়ের কবলে পড়েছে। প্রচন্ড তুষারপাতের সঙ্গে বইছে হাড় কাঁপানো ঠান্ডা বাতাস। এ পর্যন্ত আটজনের প্রাণহানির খবর পাওয়া গেছে। আগামীকাল রোববার পর্যন্ত এ পরিস্থিতি থাকতে পারে আশংকা করা হচ্ছে। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা লাখ লাখ লোককে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকার আহবান জানিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে এবার সবচেয়ে ভয়াবহ তুষার ঝড়ের সতর্কবাণী করা হয়েছে। বিভিন্ন খবরে বলা হয়েছে, তুষার ঝড়ে শুক্রবার সন্ধ্যা নাগাদ কমপক্ষে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। আবহাওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, শনিবার সন্ধ্যা নাগাদ ওয়াশিংটন ও এর আশপাশের এলাকায় দুই ফুটেরও বেশি (প্রায় ৬১ সেন্টিমিটার) তুষার জমতে পারে। তুষার ঝড়ে জনজীবন অচল হয়ে পড়েছে। জাতীয় আবহাওয়া সার্ভিস (এনডব্লিউএস) ওয়াশিংটন ও বাল্টিমোরের জন্য এক আবহাওয়া বার্তায় বলেছে, শনিবার বিকেল নাগাদ ব্যাপক তুষার ঝড় হতে পারে। ভারী তুষাপাতের সঙ্গে ঝড়ো ঠান্ডা বাতাস ও বজ্রপাতের আশংকা রয়েছে। পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ওয়াশিংটন থেকে নিউইয়র্ক পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রের পূর্বাঞ্চলের বিস্তীর্ণ এলাকা তুষার ঝড়ের সতর্কতা কার্যকর থাকবে। এনডব্লিউএস কর্মকর্তারা জানান, সাড়ে আট কোটি আমেরিকান নাগরিকের ওপর তুষার ঝড়ের প্রভাব পড়তে পারে যা যুক্তরাষ্ট্রের মোট বাসিন্দাদের এক তৃতীয়াংশ। তুষার ঝড়ে ১শ’ কোটি ডলারের বেশি ক্ষতি হতে পারে। দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন রাজ্যে ইতোমধ্যে তুষার ঝড় শুরু হয়েছে। হাজার হাজার লোক বিদ্যুবিহীন হয়ে পড়েছে। ওয়াশিংটনের মেয়র মুরিয়েল বাওসার এক বার্তায় স্থানীয়দের নিজ নিজ বাড়িতে অবস্থান করার অনুরোধ করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমি সবাইকে একটা বিষয় পরিষ্কার জানিয়ে দিতে চাই যে সামনে বড় ধরনের তুষার ঝড় হতে পারে। এটা অনেকটা জীবন-মরণ সমস্যা। আর এই দুর্যোগ প্রত্যাশিত সময়ের আগেই আঘাত হেনেছে।’ ইতিমধ্যে কয়েক হাজার ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। ঝড়ের পূর্ব প্রস্তুতি হিসেবে অনেকে প্রয়োজনীয় সামগ্রী কিনে মজুত করায় মুদির দোকানগুলো প্রায় খালি হয়ে গেছে। ওয়াশিংটনে সব স্কুল ও সরকারি অফিস বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। গণপরিবহনগুলো শুক্রবার সন্ধ্যা থেকে সোমবার সকাল পর্যন্ত বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয়া হয়েছে। ওয়াশিংটনের জন্য পাঠানো আবহাওয়া বুলেটিনে বলা হয়েছে, ভারী তুষারপাত বিপজ্জনক পরিস্থিতির সৃষ্টি করবে এবং এটা জীবন ও সম্পদের জন্য হুমকি হতে পারে। এছাড়া তুষার ঝড়ের সময় যদি একেবারে বাদ দেয়া সম্ভব না হয় তাহলে ভ্রমন ব্যাপকভাবে সীমিত করার কথা বলা হয়েছে। ওয়াশিংটন পোস্টের খবরে বলা হয়েছে, শুক্রবার স্থানীয় সময় রাত আটটায় ওয়াশিংটনের জাতীয় মলে ৩ দশমিক ৫ ইঞ্চি পুরো বরফ জমেছে। রাতে বাতাস বাড়তে পারে। নগর পুলশ প্রধান ক্যাথি লানিয়ার স্থানীয় বাসিন্দাদের ঘরের মধ্যে থাকার আহবান জানিয়েছেন। পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা ওয়াশিংটনের বিভিন্ন সড়ক থেকে তুষার সরানোর কাজ করছেন। কেউ কেউ বেলচা দিয়ে তুষার পরিষ্কার করছেন। দেশটিতে ইতোমধ্যে ৭ হাজারেরও বেশি ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। ওয়াশিংটনের কর্মকর্তারা শুক্রবার রাত থেকে সোমবার সকাল পর্যন্ত নগরীর রেল ও বাস সার্ভিস বন্ধ করে দিয়েছে।