Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১০:২৫ ঢাকা, মঙ্গলবার  ১৩ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

‘তুরস্কের মন্তব্যে বাংলাদেশের কড়া প্রতিবাদ’

চট্টগ্রাম অঞ্চলের আলবদর কমান্ডার জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীর ফাঁসি কার্যকর নিয়ে তুরস্কের মন্তব্যের কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ।

এ ধরনের প্রতিক্রিয়া একটি সার্বভৌম রাষ্ট্রের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের শামিল বলেও সাফ জানিয়ে দিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

সোমবার ঢাকায় তুর্কি দূতাবাসে দেয়া এক চিঠিতে বলা হয়, মীর কামেসের ফাঁসির ঘটনায় তুর্কি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দেয়া বিবৃতি অনাকাঙ্ক্ষিত।

রোববার তুর্কি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আমরা দুঃখের সঙ্গে জানতে পেরেছি যে, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য মীর কাসেম আলীর বিরুদ্ধে দেশটির আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের জারি করা মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে।’

এতে বলা হয়, ‘আমরা আবারও জোর দিয়ে বলছি যে, এ পদ্ধতিতে অতীতের ক্ষত সারানো যাবে না এবং আমরা আশা করি, এভাবে ফাঁসি দেয়ার ঘটনা বাংলাদেশের ভ্রাতৃপ্রতিম জনগণের মধ্যে বিভেদ বাড়াবে।’

এর প্রতিবাদ জানিয়ে আজ বাংলাদেশের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘এ ধরনের প্রতিক্রিয়া একটি সার্বভৌম দেশের নিজস্ব বিষয়ে হস্তক্ষেপের শামিল। এটি ভ্রাতৃপ্রতীম দুটি দেশের বিদ্যমান সম্পর্ককে এগিয়ে নিতে সাহায্য করবে না।’

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল স্থাপনের বিষয়টি চিঠিতে তুলে ধরে বলা হয়, ১৯৭১ সালে যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধ সংঘটনকারীদের বিচারের মাধ্যমে জাতির দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা পূরণ হয়েছে, ন্যায়বিচার নিশ্চিত হয়েছে, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এবং ঐক্য প্রতিষ্ঠার সত্যিকারের সুযোগ তৈরি হয়েছে।

মীর কাসেম কুখ্যাত আলবদর বাহিনীর কমান্ডার ছিল জানিয়ে এতে বলা হয়, দেশীয় ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের জন্য উন্মুক্ত এবং কোনো ধরনের রাজনৈতিক হস্তক্ষেপ ছাড়াই স্বচ্ছ ও নিরপেক্ষ বিচার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তাকে সাজা দেয়া হয়েছে।

চিঠিতে আরও বলা হয়, ‘আদালত কেবল একাত্তর সালে সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধ এবং গণহত্যার বিষয়টি আমলে নিয়ে রায় দিয়েছেন, মীর কাসেম আলীর রাজনৈতিক পরিচয় কিংবা সম্পৃক্ততার জন্য নয়।’

শনিবার রাতে গাজীপুরের কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগারে একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধী জামায়াত নেতা মীর কাসেমের ফাঁসি কার্যকর করা হয়।

এরপরই বিবৃতি দিয়ে প্রতিক্রিয়া জানায় পাকিস্তানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। পাকিস্তানের বিবৃতির পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকায় নিযুক্ত দেশটির ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনার সামিনা মেহতাবকে তলব করে কড়া প্রতিবাদ জানায় বাংলাদেশ।