ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:০৪ ঢাকা, সোমবার  ২৪শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

‘তিন যুদ্ধের ভেতর দিয়ে যাচ্ছে দেশ’ – তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু জঙ্গিদমন, টেকসই উন্নয়ন ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার তিন যুদ্ধে জয়ী হতে সংবিধানের পক্ষে দৃঢ় ভূমিকা পালনের জন্য জেলা প্রশাসকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। সেই সাথে জঙ্গি দমন যুদ্ধের একটি দর্শনগত রূপরেখাও দেন তিনি।

তথ্যমন্ত্রী আজ সচিবালয়ের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সভাকক্ষে জেলা প্রশাসক সম্মেলনের সমাপনী দিনে আরো বলেন, দেশ তিন যুদ্ধের ভেতর দিয়ে যাচ্ছে। জঙ্গি দমন, টেকসই উন্নয়ন ও সুশাসন প্রতিষ্ঠার এ যুদ্ধে নিরপেক্ষতার কোন জায়গা নেই। রাষ্ট্র ও জাতির ওপর জঙ্গিদের চাপিয়ে দেয়া যুদ্ধে জয়ী হতে জাতীয় চার মূলনীতি জাতীয়তাবাদ, গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র ও ধর্মনিরপেক্ষতাসহ সংবিধান নির্দেশিত পথে জেলা প্রশাসকদের দৃঢ় ভূমিকা পালন করতে হবে।

বিগত বছরের ‘আগুনযুদ্ধ’ সাহসিকতার সাথে মোকাবিলার জন্য জেলা প্রশাসকদের ধন্যবাদ জানিয়ে এ সময় তাদের সামনে জঙ্গি দমন যুদ্ধের দর্শনগত ধারণা তুলে ধরেন তথ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘অন্যায়ভাবে জঙ্গিরা যে যুদ্ধ দেশ ও জনগণের ওপর চাপিয়ে দিয়েছে তার এক পক্ষে রয়েছে জনগণ ও সরকার এবং আরেক পক্ষে রয়েছে জঙ্গি ও তাদের দোসররা। পুরো জাতি এ যুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ রয়েছে, শুধু জঙ্গি ও যুদ্ধাপরাধী-রাজাকারদের দোসরদের নাম সে ঐক্যের খাতা থেকে কাটা গেছে।

তিনি বলেন, জঙ্গি দমন ও জঙ্গি পুনঃউৎপাদন বন্ধে জঙ্গি আর তাদের দোসর উভয়কেই নির্মূল করতে হবে। এ ক্ষেত্রে রাষ্ট্র ও জনগণের প্রতি জেলা প্রশাসনের সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা স্মরণ করিয়ে দিয়ে মন্ত্রী বলেন, সমাজ ও রাষ্ট্র থেকে জঙ্গিবাদ নির্মূল করা হচ্ছে উন্নয়নকে টেকসই করা ও সমাজে সুশাসন ও শান্তি প্রতিষ্ঠার পূর্বশর্ত।

এ সময় ‘শেখ হাসিনার দশ উদ্যোগ’ অধ্যয়ন ও বাস্তবায়ন, কেবল টিভি সংযোগে চ্যানেল ক্রমিকে বাংলাদেশ টেলিভিশন, বিটিভি ওয়ার্ল্ড এবং সংসদ বিটিভি প্রথমে রাখা নিশ্চিত করা, জঙ্গি নিয়ে তাদের দোসরদের বিভ্রান্তিমূলক বক্তব্যের বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন এবং দেশব্যাপী নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা জাল বেষ্টনের জন্যও জেলা প্রশাসকদের দিক-নির্দেশনা দেন তিনি।

জেলা প্রশাসক সম্মেলনের আজকের সকালের অধিবেশনে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলমের সঞ্চালনায় তথ্যমন্ত্রী ছাড়াও সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ড. বীরেন শিকদার, উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়, তথ্যসচিব মরতুজা আহমদ, যুব ও ক্রীড়া সচিব কাজী আখতার উদ্দিন আহমেদ, সংস্কৃতি সচিব আক্তারী মমতাজও নিজ নিজ দপ্তরের বিষয়ে জেলা প্রশাসকদের সাথে মতবিনিময় করেন।