Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৮:৩৬ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

তারেক রহমানই বিএনপি নেতা কাইয়ুমকে দুই বিদেশীকে হত্যার নির্দেশ দিয়েছে : হানিফ

দুই বিদেশীকে হত্যার নির্দেশ বিএনপি নেতা কাইয়ুম কমিশনারকে তারেক রহমানই দিয়েছে বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ।
তিনি দাবি করেন, ইতিমধ্যে সিজারি তাভেল্লা হত্যাকারী চারজন আটক করা হয়েছে। তারা ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে, তাতে উঠে এসেছে এক বড় ভাইয়ের নির্দেশে এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। ‘এই বড় ভাই তারেক রহমান লন্ডনে বসে ষড়যন্ত্র করছে। তারা নতুন ষড়যন্ত্রের জাল বুনছে। খালেদা জিয়া যখন চিকিৎসার নামে লন্ডনে গিয়েছিল তখন অনেকে সন্দেহ করেছি, ওই কু-পুত্র তারেক রহমানের সঙ্গে লন্ডনে গিয়ে ষড়যন্ত্র করবে।’
তিনি বলেন, বিএনপি নেতা কাইয়ুম কমিশনারকে নির্দেশ তারেক রহমানই দিয়েছে। গোয়েন্দা সংস্থা খোঁজ নিলেই এ তথ্য বেরিয়ে আসবে।

এছাড়া জাতীয় সংসদ অকার্যকর টিআইবির এমন প্রতিবেদনের সমালোচনা করে তিনি বলেছেন, টিআইবির প্রতিবেদন ষড়যন্ত্রের অংশ।
বুধবার রাজধানীতে একাধিক কর্মসূচিতে এসব কথা বলেন হানিফ।

জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে ২ নভেম্বর জনসভা সফল করতে বিকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে বাংলাদেশ কৃষক লীগ আয়োজিত এক বর্ধিত সভায় বক্তব্যে রাখেন তিনি।
এ সময় হানিফ বলেন, টিআইবি বলেছে সংসদ অকার্যকর। তারা তো বলবেই, কারণ সব ক্ষেত্রে সরকারের সাফল্য হয়েছে। তাহলে বোঝাই যায় ষড়যন্ত্র কোথা থেকে হচ্ছে।
তিনি বলেন, টিআইবি ফরমুলা দিয়েছে- একটি নির্বাচন দিলে এবং বিএনপি ক্ষমতায় আসলে নাকি সংসদ কার্যকর হবে। কিন্তু বিএনপি বিরোধী দল থাকাকালে অশালীন ভাষা ও খিস্তিখেউর ছাড়া কিছুই হয়নি। সংসদ অকার্যকর করতে যা যা করা দরকার বিএনপি তাই করেছে।
আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বলেন, টিআইবির মন্তব্য তাদের নয়। এটা বিএনপির এজেন্ট হিসেবে এবং  বিদেশী প্রভূদের পরামর্শের প্রতিবেদন।
সকালে দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে ২ নভেম্বরের সমাবেশের প্রস্তুতি সভায় তিনি বলেন, এ বিষয়ে সন্দেহ নেই দুই বিদেশীকে হত্যার নির্দেশ লন্ডন থেকেই এসেছে।
হানিফ বলেন, সরকারকে ব্যর্থ করার জন্যই দুই বিদেশী নাগরিককে হত্যা করা হয়েছে। আর পশ্চিমা বন্ধুরাও রেড এলার্ট জারি করলেন। আমি বলবো- বাংলাদেশে কোনো আইএস ও জঙ্গি নেই। আমাদের ওপর জোর করে আইএস ও জঙ্গি ইস্যু চাপিয়ে দেয়া হয়েছে।