তারেক রহমান
বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান

তারেককে আত্মসমর্পণের নির্দেশ

বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি ও আয়কর সংক্রান্ত পাঁচটি মামলার কার্যক্রম চলবে বলে রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট।

মামলার কার্যক্রমের উপর এর আগের দেয়া স্থগিতাদেশ তুলে নিয়ে মঙ্গলবার বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

এর মধ্যে চাঁদাবাজির তিনটি মামলায় তারেক রহমানকে ৩০ দিনের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

তারেক রহমানের করা পৃথক পাঁচটি রিটের নিষ্পত্তি করে এ রায় দেয়া হয়।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তাপস কুমার বিশ্বাস।

হাইকোর্টে এসব আবেদন দায়েরকালে তারেকের একজন আইনজীবী ছিলেন ব্যারিস্টার এ এম মাহবুব উদ্দিন খোকন।

হাইকোর্টের রায়ের পর তিনি সাংবাদিকদের তিনি বলেন, মুদ্রাপাচার মামলায় আইনের দৃষ্টিতে তারেক রহমান পলাতক। তাই আদালত এসব মামলায় রুল শুনানিতে তারেকের পক্ষে কোনো আইনজীবীকে অংশ নিতে দেননি।

মামলার বিবরণীতে জানা যায়, ২০০৭ সালে চাঁদাবাজির অভিযোগে গুলশান, শাহবাগ ও কাফরুল থানায় তিনটি মামলা হয়। তারেক রহমানের করা রিটের পরিপ্রেক্ষিতে এই তিন মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে রুল দেন আদালত।

অন্যদিকে ২০০৭ সালে ও ২০০৮ সালে আয়কর বিবরণীতে অসত্য তথ্য দেয়ায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) নিম্ন আদালতে পৃথক দুটি মামলা করে। এই দুই মামলায়ও তারেকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট রুল ও মামলার কার্যক্রমে স্থগিতাদেশ দিয়েছিলেন।