Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১০:৪৮ ঢাকা, শনিবার  ১৭ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

লঞ্চে গৃহবধূকে ধর্ষণ চেষ্টায় আটক ৪ যুবক

তরুণী গৃহবধূকে লঞ্চের কেবিনে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টা

চাঁদপুরের মেঘনা নদীতে মাদারীপুরগামী এমভি পারাবাত-১৪ নামে যাত্রীবাহী একটি লঞ্চের কেবিনে এক গৃহবধূকে (১৮) ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে চার যুবককে আটক করেছে চাঁদপুর নৌ-পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে একটি পিস্তল উদ্ধার করা হয়। আটকরা হলো- সুজন (১৯), রজ্জব (১৯), ইমরান (২৩) ও সাব্বির(২০)। সোমবার রাত ১টায় এ ঘটনা ঘটে।  আটকরা সকলে রাজধানী ঢাকার জুরাইন এলাকার বাসিন্দা। ওই গৃহবধু জানায়, তারা রাত ৮টায় সদরঘাট থেকে মাদারীপুরগামী লঞ্চ এমভি পারাবাত-১৪ উঠেন। লঞ্চটি চাঁদপুরের মেঘনা নদীর মোহনপুর এলাকায় পৌঁছালে তাদের কেবিনের সামনে এসে ওই যুবকরা আইনের লোক পরিচয় দিয়ে দরজা খুলতে বাধ্য করে। এ সময় ওই গৃহবধূকে রুমে আটকে রেখে তার সঙ্গে থাকা প্রেমিক সোহেল তানভিরকে (২০) লঞ্চের ছাদে নিয়ে মারধর করে। একপর্যায়ে তারা সোহেলকে ওই যুবকদের কেবিনে নিয়ে আটকে রাখে। পরে ওই যুবকরা তরুণী গৃহবধূর কক্ষে ঢুকে। এ সময় ইমরান নামে এক যুবক তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় প্রেমিক সোহেলের চিৎকার শুনে যাত্রীরা এসে চার যুবককে আটক করে। লঞ্চটি চাঁদপুর লঞ্চঘাটে ভিড়লে নৌ-পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করে লঞ্চের যাত্রীরা ওই যুবকদের পুলিশের কাছে সোপর্দ করে। এ সময় তাদেরকে তল্লাশি করে ২ রাউন্ড গুলিসহ একটি বিদেশী পিস্তল উদ্ধার করা হয়। একই সঙ্গে প্রেমিক  যুগলকে পুলিশের হেফাজতে নেয়া হয়। গৃহবধু জানায়, ওমর ফারুক নামে একজনের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। কিন্তু ওই স্বামীর সঙ্গে সম্পর্ক ভাল ছিল না। তিন বছর ধরে সোহেলের সঙ্গে প্রেম সম্পর্ক থাকায় তারা পালিয়ে বিয়ে করতে যাচ্ছিল। প্রেমিক সোহেল অভিযোগ করে বলেন, আমরা দু’জনে বিয়ে করবো বলে দেশের বাড়ি মাদারীপুর যাচ্ছিলাম। কিন্তু ওই যুবকদয় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ইমরান ও সুজন  ধর্ষণের চেষ্টা করে। চাঁদপুর  মডেল থানার ওসি মামুনুর রশীদ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, চার যুবককে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে। এছাড়া প্রেমিক যুগলকেও পুলিশের হেফাজতে নেয়া হয়েছে। যুগান্তর