ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১:৪৫ ঢাকা, বুধবার  ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

তফসিল ঘোষণায় তাড়াহুড়ো করা হয়নি

পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার ক্ষেত্রে কোনো ধরনের তাড়াহুড়ো করা হয়নি বলে মন্তব্য করেছেন নির্বাচন কমিশনার মো. শাহনেওয়াজ। তিনি বলেন, এখন কেউ যদি বলে আমরা তাড়াহুড়ো করে তফসিল করেছি, কারো নির্দেশে তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে- এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও অসত্য কথা।
মঙ্গলবার নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপির প্রতি ঈঙ্গিত করে তিনি এসব কথা বলেন।
এর আগে বিএনপির মুখপাত্র আসাদুজ্জামান রিপন অভিযোগ করে বলেন, বর্তমান ইসি একচোখা, তারা ভোটার ও জনগণের দিকে তাকায় না, শুধু সরকারের দিকে তাকিয়ে থাকে। সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে সংশয় রয়েছে। নির্বাচন না পেছানোয় কমিশনের সমালোচনাও করেন তিনি।
নির্বাচন কমিশনার মো. শাহনেওয়াজ আরও বলেন, আমরা গত জুন থেকে বলে এসেছি পৌরসভা নির্বাচন ডিসেম্বরে হবে। বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায়ও ডিসেম্বরে নির্বাচন হবে এমন খবর প্রচার করেছে। তারপরও কেউ কেউ সমালোচনার জন্য বলছে তাড়াহুড়োর করে তফসিল দেয়া হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, পৌরসভার মেয়াদ ৫ বছর শেষ হওয়ার আগের ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন করতে হয়। জানুয়ারিতে ভোটার তালিকা হালনাগাদ, বিশ্ব ইজতেমা, পরীক্ষা এসব কারণে ডিসেম্বর ছাড়া কোনোভাবে নির্বাচন সম্ভব না।
আচরণ বিধি প্রতিপালন বিষয়ে তিনি বলেন, আচরণবিধি অনুসারে, নির্বাচনে প্রার্থীদের পথসভা ও ঘরোয়া সভা করতে হলে ২৪ ঘণ্টা আগে স্থান ও সময় সম্পর্কে স্থানীয় আইন-শৃঙখলা রক্ষাকারী বাহিনীর অনুমতি নিতে হবে। আচরণবিধিতে এ ধরনের আইন প্রার্থীদের জন্য কড়াকড়ি হচ্ছে কি না, বাস্তবায়নে কোনো অনিময় হবে কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটা পৌরসভা নির্বাচন। ব্যাপক এলাকা নিয়ে নির্বাচন নয়। কাজেই ২৪ ঘণ্টা আগে আইন রক্ষাকারীদের জানালে তারা নিরাপত্তার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নিতে পারবে। ঘরোয়া সভাতে যেন কোনো ধরনের সন্ত্রাসী কার্যক্রম না হতে পারে সেটা ভালো করে খেয়াল রাখতে পারবে। আগে থেকে জানালে ছোট বড় সব ঘটনা নিয়ন্ত্রণ করা যাবে।
মন্ত্রী-এমপিদের প্রচারণায় সুযোগ না দেয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা যখন আচরণবিধি করি তখন কেউ এ বিষয়ে আমাদের কাছে অভিযোগ করেনি। আমরা সঠিকভাবে বিধি করেছি। আইন মন্ত্রণালয় থেকে চূড়ান্ত ভেটিং হয়েছে। সার্বিকভাবে আমরা আমাদের নিরপেক্ষতা বজায় রাখার চেষ্টা করেছি। ভবিষ্যতেও রাখব।
তিনি বলেন, তফসিল ঘোষণার পর বিধি পরিবর্তন করলে আইনে তা অবৈধ হবে। আবার নতুন করে তফসিল ঘোষণা করতে হবে।
আচরণবিধি লঙ্ঘনের বিরুদ্ধে কমিশন কঠোর অবস্থান নেবে জানিয়ে মো. শাহনেওয়াজ বলেন,  তফসিল ঘোষণার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে আগাম প্রচারণা সামগ্রী সরানোর নির্দেশ দিয়েছিলাম। যারা প্রচার সামগ্রী সরিয়ে নেয়নি তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া নির্বাচনী পরিস্থিতি নিয়ে শিগগিরই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করা হবে।