ব্রেকিং নিউজ

রাত ২:৫৪ ঢাকা, মঙ্গলবার  ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

তনুর ‘মৃত্যুর কারণ উদঘাটন করা সম্ভব হয় নি

কুমিল্লা সেনানিবাসের ভেতরে মৃত অবস্থায় পাওয়া তরুণী সোহাগী জাহান তনুর দেহের দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত রিপোর্ট আজ প্রকাশ করা হয়েছে।

এবছরের ২০শে মার্চ কুমিল্লা সেনানিবাস এলাকার ভেতরে তনুর মৃতদেহ পাওয়ার পরই অভিযোগ ওঠে যে তাকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু প্রথম ময়না তদন্তে এরকম কোন সুনির্দিষ্ট প্রমাণ পাওয়া যাযনি।

এ ঘটনা নিয়ে ব্যাপক প্রতিবাদ বিক্ষোভের পর তনুর লাশ কবর থেকে তুলে দ্বিতীয় বার ময়নাতদন্ত করা হয়। তার রিপোর্ট প্রকাশ করা হলো আজ লাশ তোলার আড়াই মাস পর।

তবে চিকিৎসকরা বলছেন, এ রিপোর্টে তনুর দেহে যৌন সংসর্গের প্রমাণ পাওয়া গেলেও তা ধর্ষণ ছিল কিনা এবং ঠিক কিভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে – এর কোন সুনির্দিষ্ট তথ্যপ্রমাণ এতে পাওয়া যায়নি।

ময়নাতদন্তকারী দলের প্রধান এবং কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান কামদাপ্রসাদ সাহা বলেন, দ্বিতীয় ময়না তদন্তে দেখা গেছে যে মৃত্যুর পুর্বে তার ‘সেক্সুয়াল ইন্টারকোর্স ‘ বা যৌন সংসর্গ হয়েছে।

“দশদিনের পরের পচা গলা মৃতদেহ থেকে নতুন কোন ‘ইনজুরি’ বা আঘাতের চিহ্ন বোঝা সম্ভব যায় নি। ফলে আমরা বলেছি যে মৃত্যুর কারণ উদঘাটন করা সম্ভব হয় নি।”

এ ব্যাপারে পুলিশকে আরো তদন্তের পরামর্শ দেন তিনি।