ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৭:২০ ঢাকা, রবিবার  ২৩শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

অর্থমন্ত্রী মুহিত
অর্থমন্ত্রী এএমএ মুহিত, ফাইল ফটো

তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহারে দুর্নীতি অনেকাংশে নির্মূল করা যাবে

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার নিশ্চিত করা গেলে দুর্নীতি অনেকাংশে নির্মূল করা যাবে এবং এটি জাতীয় আয়েরও বড় একটি উৎস হবে।
তিনি আজ রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে ‘একাদশতম গভর্নমেন্ট ফোরাম অন ইলেকট্রনিক আইডেনটিটি’ শীর্ষক দুই দিনব্যাপী সেমিনারের উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।
অর্থমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে তথ্যপ্রযুক্তির অনেক উন্নতি হয়েছে। এই খাতে অনেক অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন আর স্বপ্ন নয় বাস্তবতা।
তিনি বলেন, তথ্য প্রযুক্তি খাতে এক ঝাঁক সম্ভবনাময় তরুণ কাজ করছে বলেই এতো দ্রুত এই খাতের অগ্রগতি সম্ভব হয়েছে।
তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি মো. ইমরান আহমাদ। বক্তব্য রাখেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব শ্যাম সুন্দর শিকদার। স্বাগত বক্তব্য রাখেন এশিয়া প্যাসিফিক স্মার্ট কার্ড এসোসিয়েশনের (এপিএসসিএ) চেয়ারম্যান গ্রেগ পোটি।
এ সময় জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ইলেকট্রনিক পরিচয়পত্র (ইআই) চালু হলে সামাজিক নিরাপত্তা তহবিলের যথাযথ ব্যবহার নিশ্চিত করা সম্ভব হবে।
তিনি বলেন, বর্তমানে সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে। ইউনিয়ন পর্যায়ে ইন্টারনেট সংযোগ দেয়া হয়েছে। ২০১৬ সালের মধ্যে স্মার্ট আইডি কার্ড দেয়া সম্ভব হবে বলে আশা করা যায়। এতে অনেক সমস্যার সমাধান করা যাবে।
নির্বাচন কমিশনের মাধ্যমে সরকার জাতীয় পরিচয়পত্রধারীদের স্মার্ট ন্যাশানাল আইডি কার্ড প্রদানের কাজ করছে। পৃথিবীর অন্যান্য দেশে স্মার্ট ন্যশনাল আইডি কার্ডের মাধ্যমে সরকারি-বেসরকারি নাগরিক সেবা নিশ্চিত করা হয় সেই অভিজ্ঞতা বিনিময় করতেই এই সম্মেলনের আয়োজন।
সেমিনারে এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশগুলোসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ২৬টি তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করেছে।
এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে অংশগ্রহণকারী দেশগুলো স্মার্ট কার্ড বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি ও বিভিন্ন দেশের অভিজ্ঞতা বিনিময় করবে।