Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১০:২৪ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ঢাবিতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষে আহত ৫০

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউর রহমান হল ও কবি জসিম উদ্দিন হল শাখা ছাত্রলীগের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে জিয়াউর রহমান হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু সালমান প্রধান শাওনসহ অর্ধশতাধিক ছাত্রলীগ কর্মী আহত হয়েছে ।

শুক্রবার দিবাগত রাত পৌনে ২টা থেকে ৩টা পর্যন্ত এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।  পরে আহতদেরকে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টার ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনাসূত্রে জানা যায়, জিয়া হলের সভাপতি শাওন গ্রুপের ইংরেজি বিভাগের ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগ কর্মী ইমরান জসিম উদ্দিন হলের দোকানে ‘চা’ খেতে যায়। এসময় দোকানে বসা নিয়ে জসিম উদ্দিন হলের কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মীর সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডা হয়। এক পর্যায়ে জসিম উদ্দিন হলের ছাত্রলীগ কর্মীরা ইমরানকে মারধর করে। অপর এক সূত্র বলছে এক ছাত্রীকে নিয়ে কটূক্তির জের ধরে কথাকাটির একপর্যায়ে ছাত্রলীগের দুই পক্ষে এ সংঘর্ষ শুরু হয়।

খবর পেয়ে জিয়া হল সভাপতি শাওন ঘটনার সত্যতা ও মিমাংসা করতে আসে। কিন্তু জসিম উদ্দিন হলের বিক্ষুব্ধ কর্মীরা শাওনকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এতে শাওনের মাথা ফেটে যায়।

পরে জিয়া হল ছাত্রলীগের কর্মীরা জসিম উদ্দিন হলের কর্মীদের ধাওয়া করে। এক পর্যায়ে তা দুই হলের ছাত্রলীগের সংঘর্ষে রুপ নেয়। জসিম উদ্দিন হলের কর্মীরা জিয়া হলের কর্মীদের ধাওয়া দিয়ে হলের মধ্যে ঢুকিয়ে দেয়। পরবর্তীতে জিয়া হলের কয়েক’শ কর্মী জসিম উদ্দিন হলের কর্মীদের পাল্টা-ধাওয়া দেয়। এভাবে দীর্ঘ দেড় ঘণ্টা সংঘর্ষ চলে। সংঘর্ষে প্রচুর পরিমাণে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করা হয়।

রাত ৩টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর অধ্যাপক ড. এএম আমজাদ আলী শাহবাগ থানা পুলিশের সহযোগিতায় ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। এসময় ছাত্রলীগের বিশ্ববিদ্যালয় শাখা সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় নেতারাও উপস্থিত হন।

সংঘর্ষ শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের এ্যাম্বুলেন্সে প্রায় অর্ধ-শতাধিক কর্মীকে মেডিকেল সেন্টার ও ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

জানতে চাইলে জসিম উদ্দিন হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক বি এম এহতেশাম জানান, সংঘর্ষের সূত্রপাত সম্পর্কে আমি কিছুই জানি না। তবে যাচাই করে সঠিক তথ্য নিয়ে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এর সঙ্গে ছাত্রলীগের কোনো কর্মীর সম্পৃক্ততা নেই বলে তিনি দাবি করেন।