ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ২:৫২ ঢাকা, শুক্রবার  ১৭ই আগস্ট ২০১৮ ইং

ঢাকা এখন হাইরিস্ক সিটি

ঢাকা এখন হাইরিস্ক সিটি। মাইগ্রেশন পলিসি উন্নয়নকারী আন্তর্জাতিক সংস্থা বুদাপেস্ট প্রসেস এক ই-মেইল বার্তায় এভাবেই ঢাকাকে চিহ্নিত করেছে। গত ১২ই অক্টোবর বাংলাদেশের প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়কে পাঠানো ওই ই-মেইল বার্তায় সংস্থাটি বলছে, সমপ্রতি ঢাকায় দুই জন বিদেশী নাগরিক হত্যার বিষয়টি স্পর্শকাতর ইস্যু। এ কারণে সম্মেলনের নিরাপত্তার বিষয়ে স্বাগতিক দেশ হিসেবে বাংলাদেশের মতামত জানা প্রয়োজন। এদিকে আগামী ১৫ ও ১৬ই নভেম্বর অনুষ্ঠেয় বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ফোরামের সভায় অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন দেশ ও সংস্থার প্রতিনিধিদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করার অনুরোধ জানিয়ে আধা-সরকারি পত্র (ডিও লেটার) দিয়েছেন অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ (ইআরডি)- এর সচিব মোহাম্মদ মেজবাহউদ্দিন। ২০শে অক্টোবর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবের কাছে ডিও লেটারটি পাঠানো হয়।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত ২৫শে অক্টোবর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিবের কাছে একটি চিঠি দিয়েছে প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। চিঠিতে মন্ত্রণালয়টি বলেছে, আগামী ৯ ও ১০ই নভেম্বর বুদাপেস্ট প্রসেস সপ্তম ওয়ার্কিং গ্রুপ মিটিং এবং ১১ থেকে ১৩ই নভেম্বর চতুর্থ রিজিওনাল ট্রেনিং ঢাকার বারিধারা ডিপ্লোম্যাটিক এলাকার এসকট রেসিডেন্স হোটেলে অনুষ্ঠিত হবে। ওয়ার্কিং গ্রুপ মিটিং এবং রিজিওনাল ট্রেনিংয়ের এজেন্ডার আলোকে এরই মধ্যে এ সম্মেলনের যাবতীয় প্রস্তুতি প্রায় শেষ করা হয়েছে। এমন সময়ে বুদাপেস্ট প্রসেস সেক্রেটারিয়েট থেকে সমপ্রতি ঢাকায় দুই জন বিদেশী নাগরিক হত্যার বিষয়টি স্পর্শকাতর ইস্যু হিসেবে ঢাকাকে তারা হাইরিস্ক সিটি হিসেবে অভিহিত করে ই-মেইল করে ও মতামত চায়। এর ভিত্তিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মতামত চেয়েছে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। এখন বিষয়টি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
ইআরডি সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ফোরামের সভাটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ সভায় পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ ও সংস্থা থেকে প্রতিনিধিরা অংশ নিয়ে থাকেন। কিন্তু সমপ্রতি বিভিন্ন দূতাবাসের জারি করা অ্যালার্টের কারণে বাংলাদেশে আসতে তারা ভয় পাচ্ছেন। বিষয়টি জানিয়ে ইআরডিকে মেইলও করেছেন তারা। এর বিপরীতে সরকারের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেয়ার বিষয়টির নিশ্চয়তা দেয়া হয়েছে। ইআরডি সচিবের পাঠানো ডিও লেটারে বলা হয়েছে, আগামী ১৫ ও ১৬ই নভেম্বর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র- ঢাকায় বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ফোরাম (বিডিএফ) ২০১৫ শীর্ষক সভা অনুষ্ঠিত হবে। প্রধানমন্ত্রী সভাটি উদ্বোধন করতে সম্মতি দিয়েছেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পর সরকারের রূপকল্প-২০২১, সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা ও জাতিসংঘ কর্তৃক সমপ্রতি গৃহীত টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্য (এসডিজি)-এর প্রেক্ষাপটে উন্নয়ন সহযোগী দেশ/সংস্থার প্রতিনিধিদের সঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের অগ্রাধিকার সেক্টরগুলোর উন্নয়ন চ্যালেঞ্জ ও ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনা নিয়ে সেশনভিত্তিক আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে। সভায় উন্নয়ন সহযোগী দেশের মন্ত্রী, উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার সদর দপ্তরের উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি, ঢাকায় অবস্থিত বিভিন্ন দূতাবাস/মিশন-এর প্রধান ও অন্যান্য কর্মকর্তা, সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ প্রাইভেট সেক্টর ও নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিরা অংশ নেবেন। এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে আসন্ন বাংলাদেশ ডেভেলপমেন্ট ফোরাম (বিডিএফ)-২০১৫ এর গুরুত্ব অপরিসীম। এ ফোরামে অংশ নেয়ার বিষয়ে উন্নয়ন সহযোগী দেশ/সংস্থার স্থানীয় প্রতিনিধির সঙ্গে এ বিভাগের আলোচনায় ফোরাম চলাকালীন সার্বিক নিরাপত্তার বিষয়টি সর্বাধিক গুরুত্বসহকারে বিবেচনা করছেন। এর প্রেক্ষিতে ফোরামে অংশগ্রহণকারী উন্নয়ন সহযোগী দেশ বা সংস্থার প্রতিনিধিদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করা জরুরি। এমন অবস্থায় ভেন্যু এবং সভায় অংশগ্রহণের লক্ষ্যে আগত বিভিন্ন দেশ ও উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার প্রতিনিধিদের ত্রুটিমুক্ত সর্বোচ্চ নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করার জন্য আপনার ব্যক্তিগত সহযোগিতা কামনা করছি। ইআরডি সচিবের এ ডিও লেটারের ভিত্তিতে গতকাল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট শাখা থেকে একটি চিঠি পুলিশের আইজি ও ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনারের কাছে পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে বাংলাদেশে ডেভেলপমেন্ট ফোরাম (বিডিএফ) ২০১৫ শীর্ষক সভায় বিভিন্ন দেশ বা সংস্থা থেকে আগত প্রতিনিধিদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।