ঢাকার কেরানীগঞ্জে একটি বাসায় শিশু সহ খুন-৪

শীর্ষ মিডিয়া ২৫ সেপ্টেম্বর ঃ   রাজধানী ঢাকার কেরানীগঞ্জে বুধবার একটি বাসা থেকে একই পরিবারের চার সদস্যের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।
প্রাথমিক পর্যবেক্ষণের পর পুলিশ কর্মকর্তারা মনে করছেন, এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। তবে  গতকাল বিকেল পর্যন্ত পুলিশ নিহতদের পরিচয় জানতে পারেনি।
ভবনের তত্ত্বাবধায়কসহ দু’ব্যক্তিকে এই ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।
পুলিশ বলছে, স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে বুধবার বেলা ১১টার দিকে তারা দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের কলাকান্দি এলাকার ওই ভবনটির দ্বিতীয় তলার একটি ফ্ল্যাট থেকে তারা মৃতদেহ চারটি উদ্ধার করেন, যার মধ্যে দুটি শিশুও রয়েছে। তাদের গলায় ফাঁস ও মুখ বাঁধা অবস্থায় ছিল।
স্থানীয় থানা পরিকল্পিত ভাবে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে  প্রাথমিকভাবে মনে করছে।   নিহতদের পরিচিত কারও সন্ধান পাওয়া গেছে কি-না জানতে চাইলে  বলেন, তারা যেসব ফোন নাম্বার পেয়েছেন সেগুলোতে যোগাযোগ করে কোন উত্তর পাচ্ছেন না।   বাড়ির মালিক বিদেশে থাকেন।   তত্ত্বাবধায়ক সোহেল মিয়া বাড়িটির দেখাশোনা করতেন।   দুমাস আগেই একজন অটোরিকশা চালকের মধ্যস্থতায় ওই পরিবারটি বাসা ভাড়া নিয়েছিলো।   সোহেল মিয়া ও অটোরিকশা চালককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে ।
যে ফ্ল্যাট থেকে মৃতদেহগুলো উদ্ধার করা হয়েছে তার উল্টো দিকের ফ্লাটের একজন অধিবাসী জানান, দু’মাস ধরে নতুন এ পরিবারটি এ ভবনে আসলেও কখনো তাদের সাথে কথা হয়নি। এমনকি বাসাটি অধিকাংশ সময়ই তালাবন্ধ থাকতো বলে জানান তিনি।
তিনি বলেন, বাড়িটির তত্ত্বাবধায়ক ভাড়া আদায়ের  জন্য খুঁজছিলেন এ পরিবারের সদস্যদের। বুধবার তালা না দেখে তিনি দরজায় নক করা মাত্রই দরজা খুলে যায়। এরপরই মৃতদেহগুলো দেখে চিৎকার দিলে স্থানীয় অধিবাসীরা জড়ো হতে শুরু করে।  পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আলামত সংগ্রহ করেছেন।