Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ২:৩৪ ঢাকা, মঙ্গলবার  ১৩ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

‘ডিজিটাল পদ্ধতিতে জিকা রোগী শনাক্তে বিমান বন্দরে ওয়েব ক্যামেরা’

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, বাংলাদেশে জিকা ভাইরাস সংক্রমণের কোনো আশঙ্কা নেই। তারপরও এই ভাইরাসের প্রতিরোধে সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিয়ে এগোচ্ছে সরকার। জিকা ভাইরাস আমাদের দেশে কোনোভাবে সংক্রামিত হতে পারবে না। মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, জিকা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সব চিকিত্সা ব্যয় সরকার বহন করবে।
তিনি বলেন, দক্ষিণ আমেরিকা ও মধ্য আমেরিকাসহ ক্যারিবিয়ান দ্বীপপুঞ্জের ৩০টি দেশসহ ইউরোপ ও এশিয়ার কয়েকটি দেশে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় এরই মধ্যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আন্তর্জাতিকভাবে জরুরি জনস্বাস্থ্য পরিস্থিতি ঘোষণা করেছে। এর ফলে বাংলাদেশে সরকার জিকার রোগী সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক রুটে মেডিকেল টিমের কার্যক্রম নিশ্চিত করেছে। শাহজালাল বিমান বন্দরে ডিজিটাল পদ্ধতিতে আক্রান্ত দেশ থেকে আগত যাত্রীর জিকা ভাইরাস সংক্রমণ সংক্রান্ত কার্যক্রম মনিটর করার জন্য ওয়েব ক্যামেরা বসানো হয়েছে। এছাড়া এডিস মশা যেহেতু জিকা ভাইরাস বহন করে, তাই এই মশা নিধনের ব্যবস্থা করছে সরকার।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ১৯৪৭ সালে প্রথম জিকা ভাইরাস আবিষ্কৃত হওয়ার পর থেকে আমাদের দেশে অদ্যাবধি এ ভাইরাস মানুষ, এডিস মশা, বানর বা অন্য কোন প্রাণীর দেহে সনাক্ত হয়নি। বাংলাদেশে দ্রুত গতিতে জিকা ভাইরাস ছড়ানোর সম্ভাবনা খুবই কম। তাই টেলিভিশন বা অন্যান্য মাধ্যমে প্রচারিত সংবাদে আতঙ্কিত না হওয়ার জন্য জনসাধারণকে অনুরোধ জানানো হয়। এক্ষেত্রে গণসচেতনতা বাড়ানো খুবই দরকার। আমাদের দেশের গণমাধ্যম এসব পরিস্থিতিতে সব সময় অগ্রণী ভূমিকা পালন করে থাকে। অতীতে ইবোলা ভাইরাস সংক্রমণ এর ক্ষেত্রেও তারা জনসচেতনতা বাড়াতে কাজ করেছে। এবারও জিকা ভাইরাস এর ক্ষেত্রে তারা  শুরু থেকেই সোচ্চার।
তিনি বলেন, ইতিমধ্যে আমি জাতীয় সংসদে জিকা ভাইরাস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ এর জন্য সর্বশক্তি নিয়োগ করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছি। জনগণের প্রতি আহ্বান, আপনারা আশ্বস্ত থাকুন এই ভাইরাস আমাদের দেশে কোনোভাবেই সংক্রামিত হতে পারবে না। গণমাধ্যমের উদ্দেশে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, খবর যেটুকু, সেটুকুই দেবেন। বাংলাদেশে জিকা ভাইরাস সংক্রমণের কোনো আশঙ্কা নেই। এমন খবর পরিবেশন করবেন না, যাতে মানুষ আতঙ্কিত হয়।
জিকা ভাইরাস ঠেকানোর প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগনিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক আবুল খায়ের মো. শামসুজ্জামান বলেন, আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী যেসব ব্যবস্থা নেওয়া দরকার, তার সবকিছুই নেয়া হয়েছে।
শামসুজ্জামান বলেন, ডব্লিউএইচওর বিশ্বব্যাপী স্বাস্থ্য-সংক্রান্ত জরুরি অবস্থা জারির দিনই বাংলাদেশের সবগুলো নৌ, স্থল ও বিমানবন্দরে জিকা ভাইরাসের ব্যাপারে ব্যাপক নজরদারি ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। আজ পর্যন্ত বাংলাদেশে কারো দেহে এই ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েনি।
FOLLOW US: