Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১১:৩০ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

হিলারি ক্লিনটন ও ডোনাল্ড ট্রাম্প
এগিয়ে থাকার প্রচেষ্টা জোরদার করছেন হিলারি

ট্রাম্পের রাশিয়া প্রীতিতে জাতীয় নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন : হিলারি

যুক্তরাষ্ট্রের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডেমোক্রেটিক দলের প্রার্থী হিলারি ক্লিনটন রাশিয়ার নীতির প্রতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের ‘সম্পূর্ণ আনুগত্যের’ কঠোর সমালোচনা করে বলেছেন, এর ফলে ‘জাতীয় নিরাপত্তা নিয়ে’ প্রশ্ন উঠেছে এবং তার স্বভাব নিয়ে নতুন করে সন্দেহ দেখা দিয়েছে।

হিলারির বক্তব্য উড়িয়ে দিয়ে রিপাবলিকান প্রার্থী ট্রাম্প বলেন, রাশিয়ার নেতা ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে তার কোন ‘সম্পর্ক’ নেই এবং তিনি কখনো তার সঙ্গে দেখা করেননি বা টেলিফোনেও কথা বলেননি। তবে ‘আমাদের দেশ যদি রাশিয়ার সঙ্গে চলে সেটা হবে একটা বিরাট ব্যাপার।’

এবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, পুতিন যদি তাকে ‘প্রতিভাবান’ বলে প্রশংসা করেন তাহলে তিনি তা অস্বীকার করবেন না।

তবে ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্রিমিয়ার ওপর রাশিয়ার সার্বভৌমত্ব স্বীকার করার বিষয়টি অন্তত বিবেচনা করবেন বলে বিতর্ক উস্কে দেন। ক্রিমিয়া ইউক্রেনের অংশ ছিল যা রাশিয়া ২০১৪ সালে দখল করে নেয়। আর রাশিয়ার এ কর্মকান্ডে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে নিন্দার ঝড় ওঠে।

ট্রাম্প বলেন, ‘আমি যা শুনেছি তা হল, ক্রিমিয়ার জনগণ রাশিয়ার সঙ্গে থাকবে।’

হিলারির নীতি বিষয়ক উর্ধ্বতন উপদেষ্টা জেক সুল্লিভান ট্রাম্পের বক্তব্যকে ‘ভয়ঙ্কর’ বলে উল্লেখ করেন।

রোববার ফক্স নিউজ সানডেকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে হিলারি ডেমোক্রেটিক পার্টির ই-মেইল হ্যাকিংয়ের সঙ্গে রাশিয়ার সংশ্লিষ্টতার অভিযোগ করে বলেন, সদ্যসমাপ্ত দলীয় সম্মেলনের প্রাক্কালে তাকে বিব্রত করতেই এটা করা হয়েছে।

সম্মেলন চলাকালে ট্রাম্প রাশিয়ার প্রতি হিলারির ব্যক্তিগত সার্ভার হ্যাক করার আহবান জানিয়েছিলেন।

এক প্রশ্নের জবাবে হিলারি বলেন, ‘আপনি যদি ই-মেইল হ্যাক করতে রাশিয়ানদের অনুপ্রাণিত করেন, আপনি যদি পুতিনকে ভূয়সী প্রশংসা করেন।

এতে রাশিয়ার পররাষ্ট্র নীতির প্রতি আপনার আনুগত্যই প্রকাশ করে।’ তিনি বলেন, ট্রাম্প দেশের প্রেসিডেন্ট বা সর্বাধিনায়ক হওয়ার জন্য মানসিকভাবে যোগ্য নন।