Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ১১:০২ ঢাকা, মঙ্গলবার  ১৩ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

ট্রাক স্ট্যান্ড দখলমুক্ত করতে গিয়ে বিপাকে মেয়র : হামলা সংঘর্ষ

রাজধানীর তেজগাঁওয়ে ট্রাক স্ট্যান্ড উচ্ছেদ অভিযানে অংশ নেয়াদের ওপর হামলা করেছে ট্রাক শ্রমিকরা। এ নিয়ে পুলিশের সঙ্গে শ্রমিকদের সংঘর্ষে একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছেন আরো ৪/৫ জন। ক্ষুব্ধ শ্রমিকরা মেয়র আনিসুল হককে চার ঘন্টা অবরুদ্ধ করে রাখে। অবশেষে একটি স্থায়ী ট্রাক টার্মিনাল স্খাপনের ঘোষণা দিয়ে পুলিশের সহায়তায় তেজগাঁও ট্রাক স্ট্যান্ড থেকে বেরিয়ে যান মেয়র।

tejgaon2রোববার বেলা পৌনে ১টার দিকে মেয়র আনিসুল হকের নেতৃত্বে এ উচ্ছেদ অভিযানে হামলার পর ট্রাক শ্রমিকদের সঙ্গে পুলিশের এ সংঘর্ষ বাঁধে।দু পক্ষে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটলে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে উঠে।
এ সংঘর্ষের কারণে সাতরাস্তা ও আশেপাশের সড়কে বেলা ১টা থেকে বেলা ৪টা  পর্যন্ত যান চলাচল বন্ধ থাকে।
সংঘর্ষে ঢাকা সিটি উত্তর কর্পোরেশেনের ৩/৪টি গাড়িসহ সাংবাদিকদের দুটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করেছে শ্রমিকরা। এছাড়া সংঘর্ষের মধ্যে পড়ে বেশ কয়েকজন সাংবাদিক আহত হয়েছেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে বেলা ১০টার দিকে অবৈধ ট্রাক স্ট্যান্ড উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়। এসময় কয়েকটি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়। এরপর কয়েকটি ট্রাকে বুলডোজার লাগানোমাত্র ট্রাকশ্রমিকরা উচ্ছেদ অভিযানে অংশ নেয়াদের ওপর হামলা চালায়। এসময় মেয়র আনিসুল হক হামলাকারীদের সামনে দাঁড়িয়ে উচ্ছেদ অভিযানে অংশ নেয়াদের ওপর হামলা না করার জন্য শ্রমিকদের অনুরোধ করতে থাকেন। কিন্তু শ্রমিকরা একজোট হয়ে ইট-পাথর ছুড়ে হামলা শুরু করলে মেয়র হামলাকারীদের সামনে দাঁড়িয়ে তাদের এর পরিণতি ভালো হবে না বলে হুঁশিয়ারি দেয়। কিন্তু তারপরও শ্রমিকদের মুর্হমুহু হামলায় তেজগাঁও ট্রাক স্ট্যান্ড এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।
একপর্যায়ে তারা সড়কের কয়েকটি স্থানে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে। এসময় পুলিশ ফাঁকা গুলি করে শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করতে চাইলে পুলিশের সঙ্গে তাদের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। এ সময় সিটি করপোরেশনের কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করে শ্রমিকরা। এছাড়া দুই সাংবাদিকের মোটর সাইকেল ভাঙচুর করা হয়েছে। আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন সংবাদকর্মী।
সংঘর্ষে ৪/৫ জন শ্রমিক আহত হয়েছে। গুলিবিদ্ধ একজনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
tejgoan1এদিকে পুলিশের গুলিতে শ্রমিক নিহত হওয়ার গুজবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত শ্রমিকরা সাতরাস্তা মোড়ে অবস্থান নেয়ায় ওই  সড়কে যান চলাচল বন্ধ রয়েছে।
মেয়র আনিসুল হক তেজগাঁওয়ের একটি ভবনে অবস্থান নিয়েছেন। বিকাল তিনটার দিকে স্থানীয় মহিলা কাউন্সিলর শামীমা রহমানের নেতৃত্বে মেয়রসহ সিটি কর্পোরেশনের লোকজন জয়বাংলা জয়বঙ্গবন্ধু স্লোগান দিয়ে বের হবার চেষ্টা করলে শ্রমিকরা আবারো হামলা চালায়। এরপর মেয়র আর বের হতে পারেননি। পরে বিকাল ৪টা ৫৫ মিনিটে বিপুল সংখ্যক পুলিশ ও র‌্যাব ঘটনাস্থলে মোতায়েন করা হয়। এসময় মেয়র আনিসুল হক হ্যান্ড মাইকে শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, ট্রাকস্ট্যান্ড উচ্ছেদ করা নয়, ভেতরে আধুনিক ট্রাক টার্মিনাল স্থাপন করাই আমাদের উদ্দেশ্যে। তিনি ট্রাক চালকদের রাস্তায় ট্রাক না রাখার অনুরোধ জানান। এরপর মেয়র পুলিশ ও র‌্যাব প্রহরায় গাড়িতে করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে চলে যান।
এর আগে মেয়র আনিসুল হক সাংবাদিকদের বলেন, যাদের অবৈধ স্থাপনা রয়েছে তাদের সেগুলো সরিয়ে নিতে হবে। আইন আইনের মত চলবে। সাধারণ মানুষের জন্যই এ অভিযান। এটি অব্যাহত থাকবে।
আনিসুল হক বলেন, ঢাকায় কোনো অবৈধ স্থাপনাকারীদের স্থান নেই। অবশ্যই তাকে সরে যেতে হবে। অন্যথায় তাকে উচ্ছেদ করা হবে। কারণ তার জন্য ঢাকাবাসী ভোগান্তিতে পড়তে পারে না।
তিনি বলেন, অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে জনগণ আমাদের পক্ষে আছেন। প্রধানমন্ত্রী স্বয়ং আমাকে নির্দেশ দিয়েছেন। তাদের কোনো ছাড় দেওয়া হবে না।

FOLLOW US: