Press "Enter" to skip to content

ট্রলারডুবি: কক্সবাজারে আরো ৩ লাশ উদ্ধার

বঙ্গোপসাগরে ট্রলারডুবির ঘটনায় কক্সবাজার সৈকত থেকে ৬ মরদেহ ও দু’জন জীবিত উদ্ধারের এক দিন পর আরো তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সৈকতের হিমছড়ি, মহেশখালী ও সমিতি পাড়া পয়েন্ট থেকে বৃহস্পতিবার দিন ও রাতে মরদেহ পাওয়া যায় বলে জানিয়েছেন কক্সবাজার সদর থানার ওসি (তদন্ত) মো. খায়রুজ্জামান।

এ নিয়ে নয়জনের মরদেহ উদ্ধার হলেও ৭ মরদেহের পরিচয় সনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে। তারা সবাই ভোলার চরফ্যাশন এলাকা থেকে মাছ শিকারে গিয়ে নিখোঁজ হওয়া জেলে বলে দাবি করা হচ্ছে।

সনাক্ত হওয়া মরদেহগুলো হলো, ভোলার চরফ্যাশন রসুলপুর ১ নম্বর ওয়ার্ডের মৃত আসমান পাটারীর ছেলে শামছুদ্দিন পাটারী (৪৫), পূর্ব মান্দ্রাজ এলাকার মৃত আব্দু শহীদের বাবুল (৩২), উত্তর মাদ্রাজের মৃত আব্দুল হকের ছেলে মো. মাসুদ (৪৫), একই এলাকার মৃত বুজুগ হাওলাদারের ছেলে আজি উল্লাহ প্রকাশ মনির (৩৮), মৃত নুরের ছেলে অলি উল্লাহ (৫০) রসুলপুর ৬নং ওয়ার্ড শসীবিষণের মুসলিম বলির ছেলে জাহাঙ্গীর বলি (৪০) ও পূর্ব মান্দাজ ইউপির তরিক মাঝির ছেলে কামাল হোসেন (৩৫) ও অজ্ঞাত দুইজন।

ওসি খায়রুজ্জামান গণমাধ্যমকে জানান, বুধবার ভোররাতে ঢেউয়ের তোড়ে একটি ট্রলার বীচের বালিয়াড়িতে উঠে আসে। এর পাশাপাশি কয়েকটি মরদেহও ভেসে তীরে এলে স্থানীয়দের সহায়তায় পুলিশ সি-গাল পয়েন্ট থেকে চার মরদেহ উদ্ধার করে। ভারী বর্ষণের মাঝেও সকাল ৯টার দিকে ট্রলারের ভেতর থেকে আরো দুটি মরদেহ উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে নেয়া হয়। পরিচয় সনাক্ত না হওয়া মরদেহটি ময়নাতদন্ত করে ডিএনএ টেস্টের মাধ্যমে পরিচয় জানার চেষ্টা করা হবে। সব মরদেহই একপ্রকার বিকৃত হয়ে গেছে।

শেয়ার অপশন: