ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১২:৫০ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

টেকসই সবুজ প্রবৃদ্ধির জন্য পরিবেশ সুরক্ষার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের টেকসই সবুজ প্রবৃদ্ধির জন্য পরিবেশ ও প্রতিবেশ সুরক্ষায় প্রত্যেক নাগরিকেকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের ‘জগৎ মাতার’ সুরক্ষায় আমরা সবাই যত্নবান হলে সবুজ প্রবৃদ্ধি বিকাশের মাধ্যমে দেশের অপরিচ্ছন্ন পরিবেশের ব্যাপক পরিবর্তন আনতে পারি।
তিনি রোববার ঢাকায় খামারবাড়ী কৃষিবিদ ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে বিশ্ব পরিবেশ দিবস ও পরিবেশ মেলা-২০১৫ এবং জাতীয় বৃক্ষ রোপণ অভিযান ও বৃক্ষ মেলা ২০১৫ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে ভাষণকালে এ আহ্বান জানান।
শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা এ পৃথিবীকে যতটুকু যত্নে লালন করব, পৃথিবী ঠিক ততটুকু সম্ভাবনা ধারণ করবে আমাদের জন্য। কাজেই প্রাকৃতিক সম্পদের যথাযথ ব্যবহার এবং সংরক্ষণ আমাদের নিজেদের ও ভবিষ্যত প্রজন্মের স্বার্থে করতে হবে।’
এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকারের একার পক্ষে প্রাকৃতিক ভারসাম্য রক্ষার মতো কঠিন কাজ করা সম্ভব নয়। এ জন্য তিনি দেশের সব নাগরিকেকে পরিবেশ সম্পর্কে সচেতন ও পরিবেশ সুরক্ষায় উদ্যোগী হতে এবং প্রাপ্ত বয়স্ক প্রত্যেককে অন্ততঃ ১টি বনজ, ১টি ফলদ ও ১টি ভেষজ বৃক্ষের চারা রোপণের আহ্বান জানান।
পরিবেশ ও বনমন্ত্রী আনোয়ার হোসেন মঞ্জুর সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জেকব, মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব ড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, প্রধান বন সংরক্ষক ইউনুস আলী, পরিবেশ অধিদফতরের মহাপরিচালক রাইসুল আলম মন্ডল বক্তৃতা করেন।
এর আগে প্রধানমন্ত্রী পরিবেশ সুরক্ষা ও দূষণ নিয়ন্ত্রণে বিশেষ ভূমিকার জন্য আইনজীবী মনজিল মোরশেদ এবং প্রকৃতি ও জীবন ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা আবদুল মুকিত মজুমদারকে পরিবেশ পদক-২০১৫ প্রদান করেন।
তিনি ব্যক্তি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্থানীয় সরকার সংস্থা, সরকারি দফতর ও বিভিন্ন ধরনের এনজিও’র বৃক্ষরোপণের জন্য বঙ্গবন্ধু বন্য প্রাণী সংরক্ষণ পদক ২০১৫ এবং প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় পদক ২০১৪ প্রদান করেন।
এ বছর বন ও বন্য প্রাণী সংরক্ষণে সচেতনতা সৃষ্টির জন্য জাহাঙ্গীর নগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর এম মনিরুল হাসান ও র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব), নওগাঁ ভিত্তিক বেসরকারি সংস্থা নিশান-এর পরিচালক মহিদুল রহমান এবং রাজশাহীর পুটিয়ার এম আবদুল হামিদ বঙ্গবন্ধু বন্য প্রাণী সংরক্ষণ পদক লাভ করেন।
প্রধানমন্ত্রী সামাজিক বনায়নে নওগাঁ ও গাজীপুরের দু’জনকে মুনাফার চেক প্রদান করেন।
পরে প্রধানমন্ত্রী কৃষিবিদ ইন্সটিটিউশনের চত্বরে একটি হৈমন্তীর চারা রোপণ এবং বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র সংলগ্ন মাঠে বৃক্ষমেলা-২০১৫ উদ্বোধন করেন।