Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

ভোর ৫:০৪ ঢাকা, সোমবার  ১৯শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু
শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু

টঙ্গীর অগ্নিকান্ড: আমরা দেখব কেন ঘটলো

শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, টঙ্গীর ট্যাম্পাকো কারখানায় অগ্নিকান্ডের ঘটনায় যাদের গাফিলতি থাকবে, তারা শাস্তি পাবে।
তিনি রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত কারখানা পরিদর্শনে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, টঙ্গীর ট্যাম্পাকো কারখানায় অগ্নিকান্ডের ঘটনায় আমরা সকলেই মর্মাহত, শোকাহত।

তিনি বলেন, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীসহ সকলেই এ ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন।

আমির হোসেন আমু হতাহতের পরিবার-পরিজনদের প্রতি সমবেদনা জানান। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে স্বাস্থ্য মন্ত্রাণালয়ের পক্ষ থেকে আহতদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। শ্রম মন্ত্রণালয় থেকে আর্থিক সাহায্য দেয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, শিল্প মন্ত্রণালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। পুংখানুপুঙ্খ তদন্ত করে আমরা দেখব এ ঘটনা কেন ঘটলো।

এসময় নিখোঁজদের আত্মীয়-স্বজন মন্ত্রীর সাথে কথা বললে তিনি বলেন, ধ্বংসস্তুপ সরানোর পর তালিকা করে সকল প্রকার সহযোগিতা করা হবে। এব্যাপারে বর্তমান সরকারের পক্ষ থেকে নিহতদের আর্থিক সহায়তা এবং আহতদের সকল প্রকার চিকিৎসা সেবা দেয়া হবে।

এসময় স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, শিল্প মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোশারফ হোসেন ভূঁইয়া, বিসিক শিল্পনগরীর চেয়ারম্যান মোঃ হযরত আলী, গাজীপুর পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন-অর-রশিদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ সোলায়মান, সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ বেলায়েত হোসেন, শিল্প পুলিশের সুপার শোয়েব আহম্মেদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে আজ রোববার ট্যাম্পাকো ফয়েলস লিমিটেড কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণে লাগা আগুন ২৮ ঘণ্টা পর সকাল সাড়ে ৮টায় নিয়ন্ত্রণে এসেছে। তবে সকাল সাড়ে ১০টার দিকেও ওই কারখানার ভবনের ভগ্নাশেংর নিচতলা থেকে এবং ৪ ও ৫তলা থেকে ধোঁয়া বের হতে দেখা গেছে।

এদিকে, পাঁচতলা ভবনের বিভিন্ন অংশে ফাটল দেখা দিয়েছে। ফায়ার সার্ভিস ঢাকা বিভাগীয় ডিডি মোঃ মোজাম্মেল হক এবং ডিডি মোঃ জহিরুল আমিন মিয়া জানান, এ ভবনটি যে কোনো সময় ধসে পড়তে পারে।

ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক জহিরুল আমিন মিয়া সকাল সাড়ে ৮টার দিকে জানান, আগুন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। পুরোপুরি নিভে গেলে ডাম্পিংয়ের কাজ শুরু করা হবে। ফায়ার সার্ভিসের পরিচালক লে. কর্নেল মোশারফ হোসেন শনিবার রাতে সাংবাদিকদের বলেন, আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে ফায়ার সার্ভিস কাজ করে যাচ্ছে। তবে আশপাশের ভবনগুলোকে রক্ষা করতেও পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।

এদিকে আজ সকাল ১১টায় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা দলে দলে ভাগ হয়ে পুরো ট্যাম্পাকো কারখানার চারদিক থেকে আগুন নেভানোর কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। কারখানার একপাশের অংশ এরইমধ্যে হেলে পড়েছে। তবে হেলে পড়া ভবনের ভেতর থেকে এখনও কালো ধোয়া বের হয়ে আসছে। কারখানার ভবনের অপর পাশের দক্ষিণ অংশজুড়ে এখনও আগুন জ্বলছে।

এ অগ্নিকান্ডে এখন পর্যন্ত ২৫ জন নিহত ও শতাধিক আহত হয়েছেন। আহতদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

নিহত ২৫ জনের মধ্যে ২৩ জনের নাম জানা গেছে। তারা হলেন- আনিসুর রহমান (৪০), আব্দুল হান্নান (৬৫), ইদ্রিস আলী (৪০), জাহাঙ্গীর আলম (২৪), মামুন (২৮), রোজিনা (২০), মিজান (৩০), সাইদুর রহমান (৫০), মাইনুদ্দিন (৩৫), আল মামুন (৪০), হাসান সিদ্দিকি (৩০), সোলেমান (৩২), এনামুল হক (২৮), রাশেদ (২৫), শঙ্কর সরকার (২৫), গোপাল দাস (২৫), রফিকুল ইসলাম (২৮), সুভাষ চন্দ্র প্রসাদ (৩৫), আশিক (১২), দেলোয়ার হোসেন (৫০), আনোয়ার হোসেন (৪০), ওয়াহিদুজ্জামান স্বপন (৩৫) ও তাহমিনা আক্তার (২০)।

গাজীপুরে কারখানায় বয়লার বিস্ফোরণে আহতদের চিকিৎসার জন্য ঢাকা ও গাজীপুরের সব সরকারি চিকিৎসকের ঈদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের নির্দেশে চিকিৎসকদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে বলে মন্ত্রণালয়ের ডেপুটি ডিরেক্টর ডা. নাজিব আহম্মেদ বাসসকে জানিয়েছেন।

তিনি জানান, বর্তমানে ব্যক্তিগত সফরে যুক্তরাষ্ট্রে আছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। গাজীপুরে কারখানায় দুর্ঘটনায় হতাহতদের বিষয়ে খোঁজ নিয়েছেন। আহতদের চিকিৎসা নিশ্চিত করতে চিকিৎসকদের ছুটি বাতিলের নির্দেশ দিয়েছেন। পাশাপাশি সব সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসকদের সার্বক্ষণিক উপস্থিতি নিশ্চিত করতে বলেছেন।