ব্রেকিং নিউজ

রাত ৩:০৬ ঢাকা, বুধবার  ১৯শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

বাস ধর্মঘট
বাস ধর্মঘট চলছে

ঝালকাঠির ১৭ রুটে অনির্দিষ্টকালের বাস ধর্মঘট, দুর্ভোগে যাত্রীরা

কে এম সবুজ, ঝালকাঠি ॥

বাস শ্রমিকদের মারধরের প্রতিবাদে ও ম্যাজিক গাড়ি বন্ধের দাবিতে ঝালকাঠির অভ্যন্তরিন ১৭টি রুটে দ্বিতীয় দিনের মত অনির্দিষ্টকালের জন্য বাস ধর্মঘট চলছে। বুধবার বিকেল তিনটা থেকে আন্তজেলা বাস ও মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের ডাকে এ ধর্মঘট শুরু হয়। আকস্মিকভাবে ধর্মঘট শুরু হওয়ায় যাত্রীরা পড়েছেন দুর্ভোগে।

বাস ও মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ জানান, ঝালকাঠির আঞ্চলিক মহাসড়ক ও অভ্যন্তরিন সড়কে সম্প্রতি ম্যাজিক গাড়িগুলো চলাচল করছে। এদের চালকরা বিভিন্ন সময় বাস শ্রমিকদের মারধর করে আসছে। ম্যাজিক গাড়ির চালকদের সড়কে বেপরোয়া দাপটের কারণে প্রায়ই বিভিন্ন যানবাহন দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। বুধবার দুপুরে যাত্রী ওঠানোকে কেন্দ্র করে কলেজমোর-বানাড়ীপাড়া রুটে চলাচলকারি ম্যাজিক গাড়ির চালক ও হেলপারদের সাথে বাক-বিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে বাস শ্রমিক আবুল কালামকে মারধর করে ম্যাজিক চালক ও শ্রমিকরা। আহত অবস্থায় তাকে বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ব্যাপারে ঝালকাঠি থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। এসব কারণে বিক্ষুদ্ধ আন্তজেলা বাস ও মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ বুধবার দুপুরে বাসটাস্ট্যান্ডে তাদের কার্যালয়ে জরুরী বৈঠক করেন। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শ্রমিক নেতৃবৃন্দ ঝালকাঠি থেকে বরিশাল, খুলনা, পিরোজপুর ও বরগুনাসহ অভ্যন্তরিন ১৭টি রুটে বাস চলাচল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেন। এদিকে বাস ধর্মঘটের কারণে এসব রুটে যাতায়াতকারী যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। অনেকেই গন্তব্যে যেতে না পেরে ক্ষুব্ধ হয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন।

ঝালকাঠি আন্তজেলা বাস ও মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক বাহাদুর চৌধুরী বলেন, বাস শ্রমিকদের মারধরের ঘটনায় আমরা থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছি। এ ঘটনার বিচার করতে হবে এবং ম্যাজিক গাড়ি বন্ধ করা না হলে বাস ধর্মঘট চলবে।

ঝালকাঠির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুর রকিব বলেন, ধর্মঘটের খবর শুনে আমরা বাসস্ট্যান্ড এলাকা পরিদর্শন করেছি। বাস শ্রমিক এবং ম্যাজিক গাড়ির শ্রমিকদের দুটি অভিযোগ পেয়েছি। অভিযোগগুলো তদন্ত করা হচ্ছে। সমস্যা সমাধানে বাস মালিকদের সাথে বৈঠক করার পরে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।