ব্রেকিং নিউজ

ভোর ৫:২২ ঢাকা, বুধবার  ১৭ই জানুয়ারি ২০১৮ ইং

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এবং প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজিব ওয়াজেদ জয়

“জয়কে অপহরণ ও হত্যা করতে চেয়েছিল ২১ আগস্ট হামলায় জড়িতরাই”

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেছেন, ১৫ আগস্টে যারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছে তাদের দোসররাই ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলার সাথে জড়িত। এই দুই হামলার সাথে জড়িতদের হোতারাই প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজিব ওয়াজেদ জয়কে আমেরিকায় অপহরণ করে হত্যা করতে চেয়েছিল।
গতকাল বিকালে সেগুন বাগিচায় মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর মিলনায়তনে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।
বাংলাদেশ চিলড্রেন ভয়েস-এর উদ্যোগে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহত ও আহতদেরদের স্মরণে এই আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।
বাংলাদেশ চিলড্রেন ভয়েস-এর সভাপতি এডভোকেট কাজী শাহানারা ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন মো. নবী নেওয়াজ এমপি, স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত ডা. সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী, অধ্যক্ষ মোহাম্মদ আলী চৌধুরী মানিক, সাংবাদিক মফিদা আকবর, আবু ইউসুফ বাবলু প্রমুখ।
মোজাম্মেল হক বলেন, ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট হাওয়া ভবনে বসে নীল নকশার মাধ্যমে জাতির পিতার কন্যা জননেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে যারা হত্যা করতে চেয়েছিল তাদের বিচার করার জন্য বিশেষ ট্রাইবুনাল করা হবে।
তিনি আওয়ামী লীগ নেত্রী আইভি রহমানকে হত্যার জন্য দায়ী ব্যক্তিদের শাস্তির দাবি করে বলেন, ঢাকার মেয়র মোহাম্মদ হানিফের মাথায় গ্রেনেডের স্প্রিন্টার বিদ্ধ হয়েছিল বলে তার অকাল মৃত্যু হয়েছে। এখনো ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলায় আহত বহু নেতা-কর্মী মত্যু যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন।
তিনি বলেন, হাওয়া ভবনের বসে যারা সেই সময়ে ষড়যন্ত্র করেছিল তারা এখনো দেশে-বিদেশে বসে বাংলাদেশ এবং জাতির পিতার পরিবার পরিজনদের বিরুদ্ধে নানা ধরনের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে।
তিনি বলেন, ১৫ আগস্ট এবং ২১ আগস্ট ঘটনার সাথে জড়িত ষড়যন্ত্রকারীরা আমেরিকায় প্রধানমন্ত্রীর ছেলে সজিব ওয়াজেদ জয়কে অপহরণ করে হত্যা করতে চেয়েছিল। হাতে-নাতে তা ধরা পড়েছে বলে আমেরিকা তাদেরকে শাস্তি দিয়েছে। আমেরিকা শাস্তি দিলেও বাংলাদেশে তাদেরকে আইনের আওতায় এনে শাস্তি দিতে হবে।
তিনি বলেন, জিয়াউর রহমান ১৫ আগস্টের বঙ্গবন্ধু হত্যার সাথে জড়িত ছিল বলেই পরবর্তী সময়ে ইনডেমনিটি আইন করে বিচারের পথ রুদ্ধ করেছিল ও স্বাধীনতা বিরোধীদের মন্ত্রী বানিয়েছিল। এছাড়া জিয়া বঙ্গবন্ধু হত্যায় জড়িতদের বিদেশে সরকারি চাকুরি দিয়ে পুনর্বাসন করেছিল। তারই ধারাবাহিকতায় বেগম জিয়া ক্ষমতায় এসে স্বাধীনতা বিরোধীদেরকে মন্ত্রী করেছিল।