ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৭:০৬ ঢাকা, মঙ্গলবার  ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

জ্বালানী সহযোগিতা প্রশ্নে ঢাকা-দিল্লী আলোচনা হবে

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেছেন, ভারতের সঙ্গে জ্বালানী সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা করতে বাংলাদেশ আগ্রহী। জ্বালানি খাত, সড়ক এবং অবকাঠামো উন্নয়ন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বাংলাদেশ ও ভারত পরবর্তী তিন মাসের মধ্যে এ বিষয়ে দ্বিপক্ষীয় আলোচনায় বসতে অধির আগ্রহে অপেক্ষা করছে।
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল বলেন, বাংলাদেশ সরকার ইতোমধ্যে ভারতের সাথে উচ্চ পর্যায়ে আলোচনা করেছে। আগামী কয়েক মাসের মধ্যে দু’দেশ পর্যায়ে আরো আলোচনা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
অর্থমন্ত্রী গতকাল রাতে কলকাতায় বেঙ্গল চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজে এক আলোচন সভায় একথা বলেছেন।
তিনি বলেন, ভারতে নতুন সরকার গঠিত হবার পর কিছু বিষয়ে দ্বিপক্ষীয় আলোচনার প্রয়োজন। এর মধ্যে জ্বালানী সহযোগিতার বিষয়টিও রয়েছে।
জ্বালানী সহযোগিতার পাশাপাশি নৌপথ ও স্থল পথ ব্যবহার করার বিষয় নিয়েও আলোচনা হবে।
মুহিত বলেন, গত অক্টোবর মাসে ওয়াশিংটনে আমরা ভারত সরকারের সর্বোচ্চ পর্যায়ে যোগাযোগ করেছি। আমরা তাদেরকে বোঝাতে চেষ্টা করেছি, প্রকৃত ঘটনাটি কি এবং পূর্বে কি ছিল। এখন আমরা দ্বিপক্ষীয় পর্যায়ে আলোচনা করব। এরমধ্যে অন্যতম হলো জ্বালানী সহযোগিতার বিষয়টি। এই বিষয়টির সঙ্গে শুধুমাত্র বাংলাদেশ ও ভারত সম্পৃক্ত নয়। ভূটান ও নেপালও জড়িত।
বাংলাদেশ বর্তমানে ভারত থেকে ৫শ’ মেঘাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করছে এবং প্রবৃদ্ধির হার স্থিতিশীল রাখতে আরো বিদ্যুৎ আমদানি করতে চায়। অর্থমন্ত্রী নিম্ন মানের সড়ক ও বন্দরে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, উভয় দেশের জন্য এর উন্নয়ন খুবই প্রয়োজন।