ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৬:৫৫ ঢাকা, মঙ্গলবার  ১৯শে জুন ২০১৮ ইং

জোবায়দা
হাইকোর্ট বেঞ্চ বুধবার এই বিব্রত বোধ করেন।

জোবায়দা’র মামলা শুনতে বিব্রত আদালত

জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবায়দা রহমানের বিরুদ্ধে করা দুদকের মামলা বাতিল চেয়ে করা আবেদনের রুল শুনানিতে বিব্রত বোধ করেছেন হাইকোর্ট।

মামলাটি শুনানির জন্য কার্যতালিকায় আসলে বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি জে বি এম হাসানের হাইকোর্ট বেঞ্চ বুধবার  এই বিব্রত বোধ করেন।

নিয়ম অনুযায়ী এখন এই আবেদনটি শুনানির জন্য প্রধান বিচারপতি হাইকোর্টের অন্য একটি বেঞ্চে পাঠাবেন বলে জানিয়েছেন মামলার আইনজীবীরা।

আদালতে দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ এ কে এম মনিরুজ্জামান কবির। আর জোবায়দার পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন ব্যারিস্টার রাগিব রউফ চৌধুরী।

পরে মনিরুজ্জামান সাংবাদিকদের কবির বলেন, আদালত বলেছেন এই মামলা আমরা শুনবো না। এই মামলা শুনতে বিব্রতবোধ করছি। মামলাটি আমরা প্রধান বিচাপতির কাছে পাঠিয়ে দিচ্ছি।

তিনি আরও জানান, ওই বেঞ্চের একজন বিচারপতি মামলাটি শুনতে বিব্রতবোধ করেন। তবে কোন বিচারপতি বিব্রত বোধ করেছেন তা তিনি স্পষ্ট করেননি।

অবৈধ উপায়ে সম্পদ অর্জন এবং সম্পদের যাবতীয় তথ্য গোপন করার জন্য তারেক রহমান ও তার স্ত্রী জোবায়দা রহমানসহ তারেকের শাশুড়ী ইকবাল এম আর বানুর বিরুদ্ধে ২০০৭ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর মাসে মামলা দায়ের করে দুদক।

কাফরুল থানায় দায়ের করা মামলায় ৪ কোটি ৮১ লাখ ৫৩ হাজার ৫৬১ টাকার মালিক হওয়া ও সম্পদেও তথ্য গোপনের অভিযোগে আনা হয়। মামলায় তারেক রহমানের স্ত্রী ডা. জোবায়দা রহমান ও শাশুড়ী ইকবাল মান্দ বানুকে আসামি করা হয়।

পরে একই বছরে জোবায়দা রহমানের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে মামলার কার্যক্রম স্থগিত করে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। এর বিরুদ্ধে আপিল করলেও আপিল বিভাগ হাইকোর্টের আদেশ বহাল রাখেন। কিন্তু এ মামলায় আসামিপক্ষ দুদককে পক্ষভুক্ত করেনি।
২০১৫ সালের ২ এপ্রিল দুদকের আবেদনের প্রেক্ষিতে বিচারপতি মঈনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি জে বি এম হাসানের হাইকোর্ট বেঞ্চ দুদককে পক্ষভুক্ত করার আবেদন মঞ্জুর করেন।