ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৬:৩১ ঢাকা, বুধবার  ২৬শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

রুহুল কবির রিজভী
বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, ফাইল ফটো

জেলে থাকাকালীন শেখ হাসিনার চিকিৎসা নিয়ে প্রশ্ন রিজভীর

বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন সাবজেলে বন্দি ছিলেন, তখন কীভাবে তার স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসা হয়েছিল তা জানতে চেয়েছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

সোমবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির এ নেতা বলেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘সাবেক প্রধানমন্ত্রী হিসেবে খালেদা জিয়াকে কারাগারে সর্বোচ্চ সুযোগ-সুবিধা দেয়া হচ্ছে। খালেদা জিয়ার চিকিৎসা হোক বিএনপি চায় না।’

ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ করে রিজভী বলেন, সাবজেলে থাকাকালীন কীভাবে শেখ হাসিনার স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসা হয়েছিল তার উত্তর দেবেন কি আপনি? তিনি (শেখ হাসিনা) কি এ রকম একটি পরিত্যক্ত ভবনে ছিলেন? পৃথিবীর কোনো দেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রীকে কি এ রকম স্যাঁতসেঁতে পরিবেশে রাখে?

বিরোধী প্রতিপক্ষের প্রতি আওয়ামী লীগের আচরণ ২৫ মার্চের পর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর চেয়ে কোনো অংশেই কম নয় বলে মন্তব্য করেন তিনি। রিজভী আরও বলেন, অগণতান্ত্রিক সরকারের মিথ্যাবাদী গোয়েবলমের ভূমিকা পালন করছেন ওবায়দুল কাদেররা। যারা গণবিচ্ছিন্ন তাদের ‘হাইপার প্রোপাগান্ডার’ ওপর নির্ভর করতে হয়। সরকারের টিকে থাকার নিভু নিভু দীপটিকে টিকিয়ে রাখার জন্যই ওবায়দুল কাদের মরিয়া হয়ে উঠেছেন।

রিজভীর অভিযোগ, ১/১১-এর সময় গ্রেফতার অবস্থায় নিজ নেত্রীর টাকা লেনদেন সম্পর্কে যা বলেছেন সেটিকে আড়াল করার জন্যই বিএনপির বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচারণার প্রাণান্তকর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন ওবায়দুল কাদের।

ঈদের দিন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদকে পুলিশ বাড়ি থেকে বের হতে না দেয়ার ঘটনার সমালোচনা করেন রিজভী।

তিনি বলেন, ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশে যে বাধা ও নির্দয় আচরণ করা হয়েছে, তার নজির একমাত্র আওয়ামী লীগই। ঈদুল ফিতরের মতো উৎসবের দিনেও মওদুদ আহমদকে নিজ গ্রামের বাড়িতে পুলিশ দিয়ে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়। উৎসবের দিনে তিনি বাইরে বেরোতে পারেননি এবং নিকটজনরা তার বাসায় ঢুকে ঈদের শুভেচ্ছা জানাতে পারেননি। ওবায়দুল কাদেররা অবৈধ ক্ষমতার অহংকারে হিতাহিত জ্ঞানশূন্য হয়ে পড়েছেন।