ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৭:১০ ঢাকা, সোমবার  ২০শে আগস্ট ২০১৮ ইং

জিয়াউর রহমান
সাবেক বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট ও বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা মরহুম জিয়াউর রহমানের ফাইল ফটো

‘জিয়ার বিচারে ‘তদন্ত কমিশন’ চাই’ – ইনু

তথ্যমন্ত্রী ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ‘বিচারের নামে প্রহসনে দেশপ্রেমিক মুক্তিযোদ্ধা কর্নেল তাহেরকে হত্যাসহ ক্যান্টনমেন্টে হাজার হাজার সেনা হত্যাকারী জেনারেল জিয়াউর রহমানের রাজনৈতিক দুষ্কর্মের বিচারের জন্য তদন্ত কমিশন গঠন ও শ্বেতপত্র প্রকাশ করতে হবে।

মুক্তিযুদ্ধের ১১ নম্বর সেক্টর কমান্ডার কর্নেল আবু তাহের বীর উত্তমকে ১৯৭৬ সালের ২১ জুলাই ফাঁসিতে ঝুলিয়ে হত্যার ৪২তম বার্ষিকীতে তার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন ও স্মরণসভার আয়োজক জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদের সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী তার বক্তৃতায় এ দাবি উত্থাপন করেন।

রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে জাসদ কার্যালয় চত্বরে আজ অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার এমপি, ন্যাপ (মোজাফফর), গণতন্ত্রী পার্টি, মুক্তিযোদ্ধা সংগ্রাম পরিষদের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত হয়ে তাহেরের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘জেনারেল জিয়াউর রহমান একজন ঠান্ডা মাথার খুনি ও দেশকে অপমানকারী বিশ্বাসঘাতক। তিনি একদিকে ঠান্ডা মাথায় কর্নেল তাহেরসহ হাজার হাজার সেনা খুন করে ক্যান্টনমেন্টকে কসাইখানা বানিয়েছেন, অপরদিকে রাজাকার ও বঙ্গবন্ধুর খুনিদের রাজনীতিতে আমদানি, পুনর্বাসিত ও সম্মানিত করে সমগ্র মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশকে অপমান করেছেন, দেশের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছেন।’

‘দেশে আজ রাজাকার, যুদ্ধাপরাধী, বংগবন্ধুর খুনিদের বিচার হলেও জিয়ার দুষ্কর্মের তদন্ত ও বিচার এখনো হয়নি’ উল্লেখ করে মুক্তিযোদ্ধা ইনু বলেন, ‘জিয়ার রোপিত বিএনপি নামের বিষবৃক্ষ এখনো দেশের রাজনীতিকে নীল করে রেখেছে। জঙ্গি উৎপাদন, পুণঃ উৎপাদন করেই চলেছে, দেশকে পাকিস্তানের পথে ঠেলে দেবার চক্রান্ত করেই চলেছে।’

তিনি বলেন, এই চক্রান্তের অন্ধকার থেকে বেরিয়ে আসতে হলে, জিয়াউর রহমান পরিচালিত হত্যাযজ্ঞসহ সকল রাজনৈতিক দুষ্কর্মের বিচারের জন্য তদন্ত কমিশন গঠন ও শ্বেতপত্র প্রকাশ করা আর রাজনীতির বিষবৃক্ষ বিএনপিকে ক্ষমতা ও রাজনীতির বাইরে রাখার কোনো বিকল্প নেই।

দিবসটি উপলক্ষে কর্নেল তাহেরের নিজ গ্রাম নেত্রকোণার কাজলায় তার সমাধিতে আজ শনিবার সকালে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তার স্ত্রী ও জাসদের সহসভাপতি লুৎফা তাহের, তাহেরের ছোট ভাই ও জাসদ স্থায়ী কমিটির সদস্য অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন, ময়মনসিংহ ও নেত্রকোণা জেলা জাসদ নেতৃবৃন্দসহ তাহেরের স্বজনেরা।