Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৭:৩১ ঢাকা, রবিবার  ১৮ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

অ্যাঙ্গেলা মার্কেলের নীতির জনপ্রিয়তা পরীক্ষা হবে এই প্রাদেশিক নির্বাচনে

জার্মান নির্বাচন: মার্কেলের জন্য বিতর্কিত সিদ্ধান্তের রাজনৈতিক পরিণতির পরীক্ষা

জার্মানির তিনটি প্রদেশে আজ নির্বাচন হচ্ছে। বলা হচ্ছে, মধ্যপ্রাচ্য থেকে গণহারে শরণার্থী ঢুকতে দেওয়া নিয়ে চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মার্কেলের বিতর্কিত সিদ্ধান্তের রাজনৈতিক পরিণতি কি হতে পারে – তার একটি আঁচ পাওয়া যাবে এই নির্বাচনে।

ভিন্ন জনমত জরীপ বলছে, তার ক্রিস্টিয়ান ডেমোক্রেটিক পার্টির অনেক ভোট অভিবাসন বিরোধী একটি দলের বাক্সে পড়বে।

শুধুমাত্র গতবছরেই অর্থাৎ ২০১৫ সালে দশ লাখেরও বেশি অভিবাসী ও শরণার্থী জার্মানিতে প্রবেশ করেছে।

তারপর থেকেই জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা মার্কেলের বিরুদ্ধে জনমত ক্রমশই জোরালো হচ্ছে। অভিবাসনবিরোধী সমাবেশও হচ্ছে রাজধানী বার্লিনসহ বিভিন্ন শহরে।

আজ যে তিনটি অঞ্চলে নির্বাচন হচ্ছে তাকে দেখা হচ্ছে অভিবাসন ও শরণার্থী বিষয়ে জার্মান চ্যান্সেলরের নীতির পরীক্ষা হিসেবে।

নির্বাচনের আগে চালানো জনমত জরিপে দেখা যাচ্ছে অভিবাসনবিরোধী দল অলটারনেটিভ ফ্যুর ডয়েচলান্ড নির্বাচনে ভালো ফল করতে পারে।

নির্বাচনী প্রচারণায় এই দলটি যেসব শ্লোগানের ওপর নির্ভর করছে তার মধ্যে রয়েছে- সীমান্তের নিরাপত্তা নিশ্চিত করো, শরণার্থী বিশৃঙখলা বন্ধ করো।

জার্মান ভাইস চ্যান্সেলর বলেছেন, আঞ্চলিক নির্বাচনে এই দলটি ভালো করলেও অভিবাসন বিষয়ে সরকারি নীতির কোনো পরিবর্তন হবে না। ভাইস চ্যান্সেলর জিগমার গ্যাব্রিয়েল বলেছেন, আমরা যে মানবতা আর সংহতির পক্ষে অবস্থান নিয়েছি সেটা পরিষ্কার। আমাদের এই অবস্থান বদলাবে না।

তবে সংবাদদাতা বলছেন, নির্বাচনের ফলাফল খারাপ হলে সেটা যে আঙ্গেলা মের্কেলের দল ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ইউনিয়নের ওপর চাপ সৃষ্টি করবে সেটা নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

এই চাপ ইতোমধ্যেই স্পষ্ট হতে শুরু করেছে। পশ্চিম ইউরোপ অভিমুখে অভিবাসীদের স্রোত কমাতে ইউরোপীয় ইউনিয়নের ও তুরস্কের মধ্যে একটি চুক্তির কথা বলে আসছে জার্মানি। বিবিসি