Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৫:২৭ ঢাকা, শুক্রবার  ১৬ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

‘জার্মানির বিপণিবিতানে হামলাকারী ইরানি’

জার্মানির মিউনিখের অলিম্পিক স্টেডিয়ামের পাশে একটি বিপণিবিতানে হামলাকারী একজন ইরানি নাগরিক বলে জানিয়েছে পুলিশ। সে মিউনিখের শহরটিতে গত কয়েক বছর ধরে বসবাস করে আসছিল।

পুলিশের একজন মুখপাত্র বলছেন, ওই তরুণ একাই গুলি চালিয়ে আটজনকে হত্যা করেছে, কিন্তু তার সম্পর্কে পুলিশের কাছে আগে কোন তথ্য ছিল না। আটকের আগেই ওই হামলাকারী তরুণ আত্মহত্যা করেছেন বলে পুলিশ জানিয়েছিল। এ ঘটনায় হামলাকারী সহ ৯ জন নিহত এবং কমপক্ষে ২০ জন আহত হয়েছে। গুরুতর আহত অবস্থায় আছেন তিনজন।

শুক্রবার সন্ধ্যায় এই গোলাগুলির ঘটনা শুরুর পর প্রথমে পুলিশ ধারণা করেছিল যে একাধিক হামলাকারী রয়েছে। তাই তাদের সন্ধানে বড় ধরণের অভিযানও শুরু করা হয়, যান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। তবে হামলাকারী একজন বলে নিশ্চিত হওয়ার পর পুলিশ তাদের অভিযান বন্ধ করে। এরপর থেকে মিউনিখের পরিস্থিতি অনেকটাই স্বাভাবিক হয়ে আসতে শুরু করে, যান চলাচলও শুরু হয়েছে।

এই ঘটনাটি শুরু হয়েছিল জার্মানির স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টার দিকে। মিউনিখের অলিম্পিয়া শপিং সেন্টার নামের একটি বিপণি বিতানে গোলাগুলির খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে যায়।

এটি সন্ত্রাসী হামলা হিসেবে এখনও স্বীকার করেনি জার্মান পুলিশ। জার্মান চ্যান্সেলরের চিফ অব স্টাফ পিটার আল্টমাইয়ের জানান, এটি সন্ত্রাসী হামলা ছিল কিনা আমরা জানিনা। বিষয়টি নিয়ে এখনও তদন্ত করছি। আর এটা যে সন্ত্রাসী হামলা ছিল না, সেটাও বলতে পারছি না আমরা।

পরিস্থিতি সামলাতে প্রতিবেশী অস্ট্রিয়া থেকেও পুলিশ আনা হয় এবং হামলাকারীদের সন্ধানে বড় ধরণের অভিযান শুরু করে। পরে ওই বিপণি বিতান থেকে আটজনের মৃতদেহ, আর প্রায় এক কিলোমিটার দূরের আরেকটি জায়গা থেকে আরেকজনের মৃতদেহ উদ্ধার করে। এই শেষের জনই হামলাকারী বলে পুলিশ বলছে, যিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রথমে পুলিশ ধারণা করে।

এ ঘটনার পরেই জার্মানির চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মারকেল আজ দেশটির নিরাপত্তা কাউন্সিলের একটি বৈঠক ডেকেছেন। এই ঘটনার কড়া নিন্দা জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স, ব্রিটেন। জার্মানির যেকোনো সহায়তায় পাশে থাকাও অঙ্গীকার করেছেন এসব দেশের রাষ্ট্র নেতারা।

এদিকে ব্রিটেনের নাগরিকদের জার্মানের এই শহরটি এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। বিবিসি।