জার্মানির রাজধানী বার্লিনে এক বাংলাদেশি ব্লগারকে তাঁর আবাসস্থল থেকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করেছে পুলিশ৷ ঠিক কী কারণে তাঁর মৃত্যু হয়েছে তা এখনো জানা যায়নি৷

লেখকদের সংগঠন ‘পেন জার্মানি’র উদ্যোগে বার্লিনে আশ্রয় নেয়া তমালিকা সিংহর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে৷ তিনি ব্লগার হিসেবে স্থানীয় বাঙালি কমিউনিটিতে পরিচিত ছিলেন এবং অর্পিতা রায়চৌধুরী নামে লেখালেখি করতেন৷

বার্লিনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার রাতে তাঁর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ৷ নিজের আবসস্থলের স্নানঘর থেকে তাঁর নিথর দেহ উদ্ধার করা হয়৷ সেখানে উপস্থিত একজন চিকিৎসক সিংহকে মৃত ঘোষণা করেন৷

মৃতের পরিবার চাইলে মরদেহ দেশে নেয়ার ব্যাপারে সহায়তার আশ্বাসও দিয়েছে দূতাবাস৷

পেন জার্মানিও ব্লগারের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে৷ তবে ঠিক কী কারণে তাঁর মৃত্যু হয়েছে সে সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি পেন জার্মানির মুখপাত্র ফিলিক্স হিলে৷ তিনি বলেন, ‘‘আমরা আমাদের ‘নির্বাসিত লেখক’ ফেলো অর্পিতা রায়চৌধুরীর (ছদ্মনাম) মৃত্যুতে অত্যন্ত শোকাহত৷ যেহেতু পুলিশের তদন্ত এখনো অব্যাহত রয়েছে, তাই এই বিষয়ে আমরা আর কোনো মন্তব্য করতে পারছি না৷”

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশি আরেক নির্বাসিত ব্লগার জোবায়েন সন্ধি এবং তমালিকা সিংহ কাছাকাছি ভবনে থাকতেন৷ তিনি জানান, সিংহর সঙ্গে তাঁর ভালো বন্ধুত্বের সম্পর্ক ছিল৷ সর্বশেষ ১২ ডিসেম্বর তাঁদের কথা হয়েছিল বলেও দাবি করেন তিনি৷

উল্লেখ্য, পেন জার্মানি এখন অবধি বেশ কয়েকজন বাংলাদেশি ব্লগার এবং লেখককে জার্মানিতে নির্বাসিত জীবনযাপনে সহায়তা করেছে৷ তাঁদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছেন লেখক হুমায়ুন আজাদ৷ তাঁকে ২০০৪ সালের ১২ আগস্ট মিউনিখে নিজের আবাসস্থল থেকে মৃত অবস্থায় উদ্ধার করেছিল পুলিশ৷ –ডয়চে ভেলে