Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

বিকাল ৩:০৮ ঢাকা, বুধবার  ১৪ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

জামায়াতের ইফতারে গিয়ে প্রমাণ করেছেন খালেদা বদলাবেন না : তথ্যমন্ত্রী

জাসদ সভাপতি তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, খালেদা জিয়া-জঙ্গি-আগুন সন্ত্রাসী এবং জামায়াত একই সূত্রে বাঁধা। তাই খালেদা জিয়াকে রেহাই দেয়া যায় না।
তিনি বলেন, খালেদাকে রেহাই দিলে গণতন্ত্র, উন্নয়ন, ধর্ম, মানবতা পুড়ে ছাই হয়ে যাবে। গণতন্ত্রের অগ্রযাত্রা ও মানবতাকে রক্ষা করতে চাইলে খালেদা জিয়াকে আগুন সন্ত্রাস ও মানুষ পোড়ানোর অপরাধে বিচার ও সাজা দিতে হবে।
তথ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেন, খালেদা জিয়া ক্রমাগত আগুন সন্ত্রাসী জঙ্গি উৎপাদন করে চলেছেন, তিনি জামায়াতের ইফতার অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে প্রমাণ করেছেন তিনি বদলাবেন না। তার পথ জঙ্গিবাদের, আগুন সন্ত্রাসের, তালেবানের।
তথ্যমন্ত্রী আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউর শহীদ কর্নেল তাহের মিলনায়তনে জাসদ ঢাকা মহানগর আয়োজিত ‘জঙ্গি-আগুন সন্ত্রাসের মূলোৎপাটন : গণতন্ত্রের অগ্রযাত্রা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
মহানগর জাসদের সমন্বয়ক মীর হোসেন আখতারের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাসদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক শরীফ নূরুল আম্বিয়া, যুগ্ম সম্পাদক নাজমুল হক প্রধান এমপি, জাতীয় নারী জোটের সভাপতি আফরোজা হক রীনা, জাসদের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নঈমুল আহসান জুয়েল।
বাংলাদেশের রাজনীতিতে খালেদা জিয়ার কোনো জায়গা হতে পারে না উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, জঙ্গিবাদের বিষয়ে যদি জিরো টলারেন্স দেখানো যায় তাহলে খালেদা জিয়ার ব্যাপারেও জিরো টলারেন্স দেখাতে হবে। জঙ্গিবাদ ও খালেদা জিয়াকে বিন্দু পরিমাণ ছাড় দেয়া যাবে না।
তিনি বলেন, বাংলাদেশকে টিকে থাকলে হলে, একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হলে, উৎপাদন গণতন্ত্র ও মানবতাকে রক্ষা করতে হলে খালেদা জিয়া ও জঙ্গিবাদকে ধ্বংস করে দিত হবে। এটাই হবে বাংলাদেশের ভবিষ্যতের রাজনীতি।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, যারা দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত, যারা জামায়াতের সঙ্গে গোপনে আঁতাত করতে চায়, তারা খালেদা ও জঙ্গিবাদকে ধ্বংস করার যুদ্ধে লড়াই করতে পারে না। লড়াইয়ের ময়দান তাদেরই, যারা আপসহীনভাবে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে লড়াই করে। সেই জঙ্গিবাদের শিকড় উৎপাটনের জন্য বেগম খালেদা জিয়াকে একচুল ছাড় না দেয়ার আহ্বান জানান তিনি।
বেগম জিয়া অন্তর্ঘাত ও চক্রান্ত করে আগুন সন্ত্রাসীদের দিয়ে সাধারণ মানুষের উপর আক্রমণ পরিচালনা করেছেন অভিযোগ করে মন্ত্রী বলেন, তাই প্রশ্ন এসেছে, বাংলাদেশের রাজনীতিতে আগুন সন্ত্রাসের এই নেত্রী থাকবেন কি থাকবেন না।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, যারা খালেদা জিয়াকে রেহাই দিতে চান তারা গণতন্ত্রকে বিপদে ফেলতে চান। যারা খালেদা জিয়াকে বাঁচিয়ে রাজনীতি করার সুযোগ দিতে চান তারা গণতন্ত্র ও উন্নয়নকে ধ্বংস করতে চান। খালেদা জিয়া এদেশে পাকিস্তানি, সামরিক শাসন কিংবা তালেবানি মার্কা শাসন কায়েম করতে চান। তাই যত কষ্টই হোক, বাংলাদেশে আর পাকিস্তান মার্কা সামরিক শাসন মার্কা কিংবা তালেবান মার্কা রাজনীতি করতে দেয়া হবে না। তাই জঙ্গিবাদের মূলোৎপাটন করতে চাইলে ডালপালাকে নয় শিকড়কে উপড়ে ফেলতে হবে।
তিনি বলেন, জাসদ এদেশকে কখনো জঙ্গিবাদি তালেবানি রাষ্ট্র হতে দিতে পারে না। তাকে অবশ্যই বিচারের মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে সাজার মাধ্যমে কারাগারে রাখার ব্যবস্থা এদেশের জনগণ করে ছাড়বে।
শহীদ মাতা জাহানারা ইমামের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের মধ্য দিয়ে তথ্যমন্ত্রী তার বক্তব্য শুরু করেন। তিনি এ সময় বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের জাতীয় আন্দোলনের সূত্রপাত যার মাধ্যমে আমরা শুরু করেছিলাম। সেই আন্দোলনের উপরে দাঁড়িয়েই যুদ্ধাপরাধীদের বিচার কার্যক্রম আমরা সম্পন্ন করেছি এবং চলমান রয়েছে।