Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৩:৫৭ ঢাকা, মঙ্গলবার  ১৩ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

হবিগঞ্জে জামাতার কোপে শ্বশুর খুন

জামাতার কোপে শ্বশুর খুন ও শাশুড়ি মারাত্মক জখম

হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলায় জামাতা সাজু মিয়া (৩২) কুপিয়ে হত্যা করেছেন শ্বশুর কামাল মিয়াকে (৪৭)। এ সময় জখম হয়েছেন শাশুড়িসহ চারজন। তাদের অবস্থাও আশংকাজনক।

শুক্রবার দিনগত গভীর রাতে উপজেলার বাঘাসুরা ইউনিয়নের রতনপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত কামাল মিয়ার বাড়ি মাধবপুরে উপজেলার রতনপুরে। আর ঘাতক সাজু শায়েস্তাগঞ্জ থানার সোরাবই গ্রামের মস্তু মিয়ার ছেলে।

আহতরা হলেন, কামাল মিয়ার স্ত্রী সাহেরা খাতুন (৪৩), মেয়ে নুরজাহান (২৫), নেক জাহান (১৮) ও ভাগিনা স্বপন মিয়া (১৯)। তাদের সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, প্রায় তিন বছর আগে শায়েস্তাগঞ্জ থানার সোরাবই গ্রামের মস্তু মিয়ার ছেলে সাজু মিয়ার সঙ্গে বিয়ে হয় রতনপুর গ্রামের কামাল মিয়ার মেয়ে নুরজাহানের।

বিয়ের পর থেকে সাজু ও নুরজাহানের মধ্যে দাম্পত্য কলহ দেখা দেয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটে। তবে উভয় পরিবারের চেষ্টায় এ সম্পর্ক আবারও গড়ে উঠে। কিন্তু পরে একই সমস্যা দেখা দিলে নুরজাহান বাবার বাড়িতে অবস্থান করতে থাকেন। শুক্রবার রাত আড়াইটার দিকে সহযোগীদের নিয়ে জামাতা সাজু শ্বশুর বাড়ি রতনপুরে এসে কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই ধারালো অস্ত্র দিয়ে শ্বশুর কামাল মিয়াকে কোপাতে থাকেন। এ সময় বাধা দিতে গেলে কামাল মিয়ার স্ত্রী সাহেরা খাতুন, মেয়ে নুরজাহান, নেক জাহান ও ভাগিনা স্বপন মিয়াকেও কুপিয়ে জখম করেন সাজু।

আহতদের আর্তচিৎকারে প্রতিবেশীরা ঘটনাস্থলে ছুটে এলে সাজু মিয়া ও তার সহযোগীরা পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে পাঁচজনকে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক কামাল মিয়াকে মৃত ঘোষণা করেন।

আর বাকিদের অবস্থার অবনতি হলে তাদের সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

পুলিশ বলছে, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পারিবারিক কলহের জের ধরে এ হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। ঘাতক সাজু মিয়াকে আটকের চেষ্টা চলছে।

FOLLOW US: