Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ২:৪২ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ২২শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

সংসদ অধিবেশন
জাতীয় সংসদ ভবন

জাতীয় সংসদের অধিবেশন শুরু হচ্ছে আজ

দশম জাতীয় সংসদের ৫ম অধিবেশন আজ সোমবার বিকেল ৪টায় শুরু হচ্ছে। গত ৩১ ডিসেম্বর রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের (১) দফায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এ অধিবেশনের আহবান করেন।
শীতকালীন অধিবেশনের পাশাপাশি এটি হবে নতুন বছরের অর্থাৎ ২০১৫ সালের প্রথম অধিবেশন। সংবিধান অনুযায়ি বছরের প্রথম অধিবেশন হিসাবে এ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতি সরকারের কর্মকান্ড ও জাতীয় উন্নয়নের ভবিষ্যৎ দিকনির্দেশনামূলক ভাষণ দিবেন।
এ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির দেয়া ভাষণে আনীত ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর সাধারণ আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে। সে হিসাবে এ অধিবেশন দীর্ঘতর হওয়ার কথা রয়েছে। এছাড়াও এ অধিবেশনে আইন প্রণয়ন ছাড়াও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ইস্যূতে আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে। তবে সোমবার বিকাল ৩টায় স্পিকার ড. শিরীন শাপরমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠেয় সংসদ কার্য-উপদেষ্টা কমিটির সভায় আসন্ন অধিবেশনের কার্যসূচি ও মেয়াদ চূড়ান্ত করা হবে।
সংসদ সচিবালয় সূত্রে জানাগেছে, এ অধিবেশনের জন্য আজ পর্যন্ত দু’টি নতুন বিল জমা পড়েছে। নতুন বিল দু’টি হচ্ছে ফাইনান্সিয়াল রিপোর্টিং বিল ২০১৫ ও ফরমালিন নিয়ংন্ত্রণ বিল ২০১৫।
এছাড়া আরো ৬টি পুরানো বিলও সংসদে জমা রয়েছে। এ বিলগুলোর মধ্যে রয়েছে, ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (সংশোধন) বিল ২০১৪, বিদ্যুৎ ও জ্বালানী গবেষনা কাউন্সিল বিল ২০১৪, ওসনোগ্রাফিক রিসার্চ ইনস্টিটিউট বিল ২০১৪, দ্রুত বিদ্যুৎ সরবরাহ (বিশেষ বিধান) (সংশোধন) বিল ২০১৪, সরকারি যানবাহন ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ বিল ২০১৪ ও মেট্রোরেল বিল ২০১৪। এর পাশাপাশি সংসদ সচিবালয়ে ৫ম অধিবেশনের জন্য প্রশ্ন ও বিভিন্ন বিধিতে নোটিশও জমা পড়েছে।
সর্বশেষ গত ৩০ নভেম্বর বর্তমান সংসদের চতুর্থ অধিবেশন শেষ হয়। যা শুরু হয়েছিল গত ১৩ নভেম্বর। মোট ১০টি কার্যদিবসের এ অধিবেশনে ১০টি সরকারি বিলের মধ্যে ৭টি পাস হয়।
এছাড়া ওই অধিবেশনে আইন প্রণয়ন সম্পর্কিত কাজ সম্পাদনের পাশাপাশি কার্যপ্রণালী বিধির ৭১ বিধিতে ৫শ’টি নোটিশের মধ্যে ১৮টি নোটিশ গৃহীত হয় এবং গৃহীত নোটিশের মধ্যে ৬ টি সংসদে আলোচিত হয়। ৭১(ক) বিধিতে দুই মিনিটের আলোচিত নোটিশের সংখ্যা ছিল ১০৫টি ।
ওই অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর সাউথ সাউথ কো-অপারেশন ভিশনারী এ্যাওয়ার্ড অর্জন করায় ১৪৭ বিধিতে ধন্যবাদ প্রস্তাব গৃহীত হয়। এছাড়া স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ও সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরী যথাক্রমে সিপিএ এবং আইপিইউর চেয়ারপার্সন ও সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় অনুরূপ ধন্যবাদ প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়।
এছাড়া চতুর্থ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর উত্তর দানের জন্য সর্বমোট ১৩৬টি প্রশ্লের মধ্যে তিনি ১৭টি প্রশ্নের উত্তর দেন।