ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৬:৫৫ ঢাকা, রবিবার  ২২শে জুলাই ২০১৮ ইং

জাতিসংঘ সদর দপ্তর ও এর মাঠ পর্যায়ের মিশনে নেতৃত্ব দিতে আগ্রহী-প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

শীর্ষ মিডিয়া ২৬ সেপ্টেম্বর ঃ  শান্তি সম্মেলনের কো-চেয়ার  শেখ হাসিনা বিশ্বে শান্তি প্রতিষ্ঠায় জাতিসংঘকে দেওয়া বাংলাদেশের সহযোগিতা অব্যাহত রাখারও ঘোষণা দেন।  শান্তিরক্ষার পথে নতুন নতুন চ্যালেঞ্জ দেখা দিচ্ছে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “জাতিসংঘের শান্তিরক্ষী এবং জাতিসংঘের জন্যই এটি এখন অনেক বেশি জটিল এবং বিপজ্জনক হয়ে পড়েছে।”  নতুন এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় শান্তিরক্ষী বাহিনীতে কর্মরত সৈন্য ও পুলিশ সদস্যদের ব্যয়বহুল ও সমন্বিত প্রশিক্ষণের দরকার, বলেন শেখ হাসিনা।  যে কোনো জটিল এবং ঝুঁকিপূর্ণ মিশনে দ্রুততার সঙ্গে শান্তিরক্ষী মোতায়েন করে বাংলাদেশ এ কাজে নির্ভরযোগ্য একটি দেশ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।”
প্রধানমন্ত্রী বলেন, “বিশ্বে শান্তিরক্ষায় পরীক্ষিত দেশ হিসেবে বাংলাদেশ এক্ষেত্রে বিভিন্ন দেশের সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী। সহযোগীদের সঙ্গে মিলে শান্তিরক্ষীদের যথাযথ প্রশিক্ষণ ও দক্ষ করে গড়ে তুলতেও আগ্রহী বাংলাদেশ।”  বাংলাদেশ এখন বিশ্বের যে কোনো স্থানে স্বল্প সময়ের নোটিসে তার আকাশ শক্তি, হেলিকপ্টার, যুদ্ধবিমান মোতায়েনের পাশাপাশি প্রকৌশলী, চিকিৎসক দল, নৌসেনা ও কর্মী মেতায়েনে সক্ষম বলে জানান শেখ হাসিনা।    এছাড়াও আমরা জাতিসংঘ সদর দপ্তর ও এর মাঠ পর্যায়ের মিশনে নেতৃত্ব দিতে আগ্রহী। আমরা আফ্রিকান পিসকিপিং র‌্যাপিড রেসপন্স পার্টনারশিপসহ বিভিন্ন মিশনে শান্তিরক্ষীদের জন্য সরঞ্জাম এবং সেবা সরবরাহ কাজের অংশ হতে চাই।   শান্তিরক্ষীদের, বিশেষ করে নারীদের উপযুক্ত প্রশিক্ষণের মধ্যে দিয়ে দক্ষ করে তুলতে বাংলাদেশ ইন্সটিটিউটক ফর পিস সাপোর্ট অপারেশন্স অ্যান্ড ট্রেনিংকে (বিপসট) বিশ্বমানে উন্নীত করার পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।
আজ শুক্রবার নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে শান্তি সম্মেলনে দেওয়া ভাষণে তিনি এ কথা বলেন
শেখ হাসিনা তার বক্তৃতায় বিভিন্ন সময় শান্তি মিশনে নিহত ১১৯ জন বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীর কথা গভীর শ্রদ্ধায় স্মরণ করেন।