ব্রেকিং নিউজ

রাত ১২:৩৩ ঢাকা, শনিবার  ১৭ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

মতিয়া চৌধুরী
আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী, ফাইল ফটো

জনগণের নয়, সন্ত্রাসের ওপর নির্ভরশীল বিএনপি : মতিয়া

আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এবং কৃষিমন্ত্রী বেগম মতিয়া চৌধুরী এমপি বলেছেন, বিএনপির জনগণের ওপর নির্ভর না করে সন্ত্রাসের ওপর নির্ভর করে বলেই পেট্রোলবোমা মেরে মানুষ হত্যা করে।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি জনগণের ওপর নির্ভর না করে সন্ত্রাসের ওপর নির্ভর করে। তাই তারা পেট্রলবোমা মেরে মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করে।’

বেগম মতিয়া চৌধুরী আজ বিকেলে রাজধানীর গুলিস্থানের গণগ্রন্থাগার কেন্দ্র মিলনায়তনে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে কৃষক লীগের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেন, কানাডার আদালত বলেছে বিএনপি সন্ত্রাসী সংগঠন। আর বিএনপি এখন বলছে, আমরা কানাডার আদালতের রায়কে প্রভাবিত করেছি। কেউ পাগল না হলে এ ধরনের কথা বলতে পারে না।’

তিনি বলেন, ‘কানাডায় বঙ্গবন্ধুর হত্যা মামলার মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত আসামী পালিয়ে রয়েছে। আমরা সে খুনীদের ফেরত চেয়েছি। কিন্তু সেদেশে মৃত্যুদন্ডের বিধান না থাকায় তারা বঙ্গবন্ধুর খুনীদের ফেরত দিচ্ছে না।’

কৃষিমন্ত্রী বলেন, আর বিএনপি বলছে সরকার সেদেশের আদালতের রায়কে প্রভাবিত করেছে। তারা দেউলিয়া না হলে এ ধরনের কথা বলতে পারে না।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা সম্পর্কে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু ও তাঁর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নিরন্তর সংগ্রামের ফসল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। কারণ প্রথমে বঙ্গবন্ধু এবং তারপর তাঁর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে বাংলা ভাষায় ভাষণ দান করেন।’

বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে মতিয়া আরো বলেন, ‘ যারা জাতিসংঘে বাংলায় ভাষণ দিতে লজ্জা পেয়েছে তারা এ দেশী নয়। একুশের প্রথম প্রহরে শহীদে মিনারে তিনি যা করেছেন জাতি হিসেবে সত্যি তা লজ্জাকর।’

কৃষক লীগের সভাপতি মো. মোতাহার হোসেন মোল্লার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সহ-সভাপতি খান আলতাফ হোসেন ভুলু, ওমর ফারুক, ছবি বিশ্বাস এমপি ও সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট খন্দকার শামসুল হক রেজা।

বেগম মতিয়া চৌধুরী বলেন, শ্রমিক অধিকার আদায়ে ১ মে শ্রমিকরা জীবন দেওয়ায় এ দিনটিকে যেমন মে দিবস হিসেবে পালন করা হয় তেমনি ২১ ফেব্রুয়ারী ভাষার জন্য জীবন দেওয়ায় এ দিনটিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

বাঙ্গালী যখন কোন সংগ্রামের শপথ নিয়েছে তখন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার আলোক বর্তিকা হিসেবে কাজ করেছে উল্লেখ করে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ১৯৯৬ সালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার আগে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের অবস্থা এত সুন্দর ছিল না।

তিনি বলেন, বই পড়লেই শুধু আলোকিত মানুষ হওয়া যায় না। আলোকিত মানুষ হওয়ার জন্য অন্ধকার থেকে আলোর পথে আসতে হয়।