ব্রেকিং নিউজ

সন্ধ্যা ৬:৩৩ ঢাকা, মঙ্গলবার  ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

জনগণের নিজেদের স্বার্থেই সরকারকে সমর্থন দেওয়া উচিত : আমু

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, বর্তমান সরকার দেশের উন্নয়নে কাজ করছে। তাই জনগণের নিজেদের স্বার্থেই সরকারকে সমর্থন দেওয়া উচিত।
আজ দুপুরে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনিস্টিটিউট মিলনায়তনে বাংলাদেশ অটো মেজর এন্ড হাসকিং মিল মালিক সমিতির বার্ষিক সাধারণ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
সমিতির সভাপতি আব্দুর রশিদের সভাপতিত্বে এতে আরও বক্তব্য রাখেন, খাদ্যমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, জাতীয় সংসদের হুইপ মোঃ শহীদুজ্জামান সরকার, এফবিসিসিআই’র সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ প্রমুখ।
আমির হোসেন আমু বলেন, ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পরে বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ন হয়। কিন্তু ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় আসার পরে আবারো দেশ খাদ্য ঘাটতির দেশে পরিণত হয়। ২০০৯ সালে আবারও ক্ষমতায় এসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ শুধু খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্নই নয়, এখন আমরা খাদ্য উদ্বৃত্বের দেশে পরিণত হয়েছি।
চাল কল মালিকদের উদ্দেশ্যে শিল্পমন্ত্রী বলেন, খাদ্য উদ্বৃত্বের দেশ বলেই আমরা আজ চাল রপ্তানী করতে পারছি। কিন্তু আমরা যদি আমদানির উপর নির্ভরশীল হতাম তাহলে এত বেশি ও বড় বড় কলকারখানা গড়ে উঠতে পারতো না। সুতরাং যে সরকার দেশের মানুষের জন্য কাজ করে আমাদের দায়িত্ব হলো সেই সরকারকে সমর্থন করা।
বর্তমান সরকারকে কৃষি বান্ধব দাবি করে কামরুল ইসলাম বলেন, আমরা শ্রীলঙ্কায় চাল রপ্তানী করছি। নেপালে ভূমিকম্পের সময় সাহায্য হিসেবে চাল পাঠিয়েছি। এখন আফ্রিকার দেশগুলোতে চাল রপ্তানীর বাজার খোঁজা হচ্ছে।
ভারতসহ অন্যান্য দেশে থেকে চাল আমদানি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আগে চাল আমদানির ক্ষেত্রে কোনও শুল্ক ছিল না। পরে আমরা ১০ ভাগ শুল্ক আরোপ করেছিলাম। কিন্তু তারপরও চাল আসছে। এখন আমরা এই শুল্ক আরও বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি। অর্থমন্ত্রী আমাকে জানিয়েছেন, এটা ১০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ২০ শতাংশ করা হবে। কয়েকদিনের মধ্যেই প্রজ্ঞাপন প্রকাশ করা হবে।
মিল মালিকদের পাটের বস্তা ব্যবহারের আহ্বান জানিয়ে এফবিসিসিআই’র সভাপতি আবদুল মাতলুব আহমাদ বলেন, দেশের স্বার্থেই আমাদের পাটের বস্তা ব্যবহার করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন সোনালী আশের সুদিন ফিরিয়ে আনতে হবে। আর আমাদেরকেই সেটা করতে হবে।