ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৭:৩১ ঢাকা, মঙ্গলবার  ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

বিগত ২০১৫ সালের জুন মাসে শিক্ষিকা বেলী আক্তার দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী ফাহাদকে ক্লাসে বেত্রাঘাত করে। এতে তার ডান হাতের বাহুতে জখম হয়। ফাহাদ টাঙ্গাইলের সখীপুরে উপজেলার বড়চওনা শাহীন স্কুলের শিক্ষার্থী। সে চটানপাড়া গ্রামের বাদশা শিকদারের ছেলে।

‘ছাত্রদের মারধর নিষিদ্ধের নির্দেশ ৬৪ হাজার স্কুলে টাঙ্গিয়ে রাখতে হবে’

প্রাথমিক শিক্ষামন্ত্রী বলেছেন বাচ্চাদের মারধর নিষিদ্ধ করে হাইকোর্টের রায়ের ওপর ভিত্তি করে দেওয়া সরকারি পরিপত্র দেশের ৬৪,০০০ প্রাথমিক স্কুলের প্রধান শিক্ষকদের কক্ষে টাঙ্গিয়ে রাখতে হবে।

“শিক্ষকদের যেন তা দৈনন্দিন নজরে আসে, অভিভাবকরাও যেন তা দেখতে পারেন।”

এছাড়া, এখন থেকে নতুন প্রধান শিক্ষক নিয়োগের সময় তাদেরকে শিক্ষক আচরণবিধি মেনে চলার অঙ্গিকার করতে হবে।

১৯৭৯ সালের এই আচরণবিধিতে ছাত্রদের/বাচ্চাদের মারধর না করার নির্দেশ রয়েছে, কিন্তু প্রধান শিক্ষকরা অনেক ক্ষেত্রেই এই বিধির কথা জানেনই না।

প্রাথমিক স্কুলে বাচ্চাদের মারধরের মত শারীরিক শাস্তি নিষিদ্ধ করে হাইকোর্ট একটি রায় দিয়েছিল বছরর পাঁচেক আগে। কিন্তু সরকারের পক্ষ থেকেই স্বীকার করা হচ্ছে, সব স্কুলে এই রায় বাস্তবায়ন করা হচ্ছেনা।

স্কুলে মারধর বন্ধের উপায় নিয়ে বিভিন্ন পক্ষের সাথে আজ (রোববার) এক বৈঠকের পর সাংবাদিকদের মন্ত্রী বলেন, এই রায় বাস্তবায়ন নিশ্চিত করতে সরকার পদক্ষেপ নিচ্ছে।