ব্রেকিং নিউজ

রাত ১০:৩৭ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ২০শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

চেষ্টা করেও বের হতে পারলেন না খালেদা

গুলশান কার্যালয় থেকে বিকেল ৩টা ৪৮ মিনিটে গাড়ি নিয়ে বের হতে চেয়েছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া। কিন্তু গেটে তালা থাকায় বের হতে পারছেন না তিনি। বিএনপির পক্ষ থেকে পুলিশকে তালা খুলে দেয়ার জন্য একাধিকবার অনুরোধ করা হলেও কোন সাড়া পাওয়া যায়নি। পরে নেতাকর্মীরা গেট ভাঙ্গতে চাইলে পিপার স্প্রে নিক্ষেপ করেছে পুলিশ।

এ সময় বিএনপি চেয়ারপার্সনের বিশেষ সহকারী শিমুল বিশ্বাস পুলিশকে গেটের তালা খুলতে অনুরোধ জানান। তিনি অনুরোধ জানানোর পর খালেদা জিয়ার গাড়ি থেকে হর্ণ বাজানো হয়। কিন্তু পুলিশ কোন সাড়া দেয়নি। এক পর্যায়ে শিমুল বিশ্বাস সরকারের এ কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা জানান।

তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, গণতন্ত্রের বিজয় না হওয়া পর্যন্ত বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া দেশবাসীর প্রতি সংগ্রাম চালিয়ে যাওয়ার উদাত্ত আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী বলেছিলেন, খালেদা জিয়াকে অবরুদ্ধ করা হয়নি।  তারা ভুয়া কথা বলেছেন। এর্ আগে দুপুর ১২টায় তিনি বের হতে চেয়েছিলেন। ওই সময়ও তাকে বের হতে দেয়া হয়নি। আপনারা দেখছেন আমরা বের হতে চাইলেও তারা গেট খুলে দিচ্ছে না।

একপর্যায়ে নেতাকর্মীরা গেট ভেঙ্গে ফেলতে চাইলে বাইরে থেকে ৩ দফা পিপার স্প্রে নিক্ষেপ করা হয়। এতে উপস্থিত সাংবাদিকসহ ১০ নেতাকর্মী আহত হয়।

বিএনপি চেয়ারপার্সনের গুলশান কার্যালয়ের দুটি গেটেই তালা দিয়েছে পুলিশ। খালেদা জিয়া দুপুরের খাবার শেষে জনসভায় যোগ দিতে নয়াপল্টনের কার্যালয়ের উদ্দেশে বের হবেন চেয়ারপার্সনের প্রেস সচিব মারূফ কামাল খানের  ঘোষণার পর বেলা পৌনে ১২টার দিকে পুলিশ গুলশান কার্যালয়ের দুটি গেটেই বাইরে থেকে তালা ঝুলিয়ে দেয়।
খালেদা জিয়া বের হওয়ার জন্য ইতোমধ্যে তাকে বহনকরা গাড়িও প্রস্তুত করা হয়। পাশাপাশি তার নিরাপত্তায় নিয়েজিত নিরাপত্তারক্ষী সদস্যরা প্রস্তুতি নিচ্ছিল। ঠিক এমন সময়ই গুলশান কার্যালয়ের মূল ও পেছনের ফটকে তালা লাগিয়ে দেয় পুলিশ।
এ অবস্থায় বিএনপি নেত্রী কীভাবে বের হবেন তা এখন অনিশ্চিত হয়েছে পড়েছে। পাশাপাশি গুলশান কার্যালয়ে এখন রুদ্ধশ্বাস অবস্থা বিরাজ করছে।
এর আগে গতকাল রাত থেকে সকাল পৌনে ১১টায় দফায় দফায় প্রায় ১৩টি ইট-পাথর ও বালুভর্তি ট্রাক কার্যালয়ের সামনে ও চুতুর্দিকে এনে রাখা হয়েছে। পাশাপাশি গুলশান কার্যালয়ের প্রবেশ পথ গুলোতে পুলিশের বেশ কয়েকটি গাড়ি আড়াআড়ি করে রাখা হয়েছে।