ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৭:১৪ ঢাকা, সোমবার  ২২শে অক্টোবর ২০১৮ ইং

ফাইল ফটো

চীনের দিকে ধেয়ে আসছে সুপার টাইফুন

সুপার টাইফুন চ্যান হোম শনিবার চীনের পূর্বাঞ্চলের বাণিজ্যিক রাজধানী সাংহাইয়ের দিকে ধেয়ে আসছে। এর আগে ঝড়টি জাপানের ওকিনাওয়া দ্বীপপুঞ্জ ও তাইওয়ানে আঘাত হেনেছে।
চীন কর্তৃপক্ষ ঝড়ের আঘাত হানার আশঙ্কায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে ৮ লাখ ৬৫ হাজার লোককে অন্যত্র সরিয়ে নিয়েছে।
চীনের জাতীয় আবহাওয়া কেন্দ্র (এনএমসি) জানায়, ঝড়টি ঝেজিয়াং প্রদেশে আঘাত হানতে পারে। ১৯৪৯ সালের পর এটা হতে পারে সবচেয়ে শক্তিশালী টাইফুন। এর প্রভাবে প্রদেশটিতে বৃষ্টিপাত হতে পারে। প্রদেশটির উত্তরে সাংহাই অবস্থিত।
এনএমসি জানায়, শনিবার সকাল ৯টায় (গ্রিনিচ মান সময় ০১০০) টাইফুনটি ঝেজিয়াং প্রদেশ থেকে প্রায় ১১৫ কিলোমিটার (৭১মাইল) দক্ষিণপূর্বে পূর্ব চীন সাগরে অবস্থান করছিল। এ সময় ঝড়ের গতিবেগ ছিল ঘন্টায় ১৮৭ কিলোমিটার।
খবর এএফপি’র।
শনিবার বিকেলে ঝেজিয়াংয়ে আঘাত হানতে পারে বলে পূর্বাভাসে বলা হয়েছে। সাংহাইয়ে পৌঁছাবার আগে এটি বন্দর নগরী নিনবোর কাছে হানার হানতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।
রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা জানায়, ঝড়ের আঘাতের আশঙ্কায় সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে বিপুল সংখ্যক মানুষকে অন্যত্র সরিয়ে নেয়ার পাশাপাশি প্রায় ৩০ হাজার মাছ ধরার নৌকাকে বন্দরে ফিরে আসতে বলা হয়েছে। উপকূলের ঢেউ ১০ মিটার (৩৩ ফুট) উঁচুতে পৌঁছায় এ আহ্বান জানানো হয়।
টোকিও ব্রডকাস্টিং সিস্টেম জানায়, ঝড়টির আঘাতে চলতি সপ্তাহের গোড়ার দিকে ফিলিপাইনে ৫ জনের মৃত্যু ও ২০ জনের বেশি লোক আহত হয়। এছাড়াও শুক্রবার জাপানে ঝড়ের প্রভাবে ঝড়ো বাতাসে গাছপালা উপড়ে যায় এবং বেশ কয়েকটি ভবনের ব্যাপক ক্ষতি হয়।
শুক্রবার তাইওয়ানে ঝড়ের আঘাতে গাছ চাপা পড়ে ৪ জন মারা যায়।