Press "Enter" to skip to content

চীনা প্রেসিডেন্টকে হাততালি দিতে অ্যাপ তৈরি

স্মার্টফোনের খেলার অ্যাপ যেখানে ফোন ব্যবহারকারীরা চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং-এর উদ্দেশ্যে হাততালি দিতে পারে, তা ভাইরাল হয়ে গেছে।

এই সপ্তাহে চীনা কম্যুনিস্ট পার্টির পঞ্চবার্ষিক অধিবেশন উপলক্ষে বাজারে ছাড়া হয়েছে এই অ্যাপ। এখানে ফোনের স্ক্রিনে ১৯ সেকেণ্ডের মধ্যে প্রেসিডেন্টের উদ্দেশ্যে যতবার খুশি করতালি দেওয়া যাবে।

অ্যাপটি তৈরি করেছে টেনসেন্ট নামে একটি কোম্পানি এবং এই অ্যাপ ব্যবহার করে গত তিনদিনে গেমটি খেলা হয়েছে ১২০ কোটি বার।

চীনে প্রেসিডেন্টের প্রতি প্রকাশ্য আনুগত্য দেখানো খুবই সাধারণ একটা ব্যাপার। অধিবেশনের আগে তা আরও বেড়ে যায়।
পাঁচদিনের এই রুদ্ধদ্বার সম্মেলন শেষ হবে মঙ্গলবার।

এই অধিবেশন থেকে আগামী পাঁচ বছর চীনের ক্ষমতায় নেতৃত্ব দেবেন কে এবং দেশের রাজনৈতিক দিকনির্দেশনা কী হবে সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে।

ব্যাপকভাবে ধারণা করা হচ্ছে মি: শি আবার নতুন মেয়াদে নেতা হতে যাচ্ছেন।

অধিবেশন উদ্বোধন করে দেওয়া সাড়ে তিন ঘন্টার ভাষণে তিনি বলেছেন চীন একটা ”নতুন যুগে” প্রবেশ করেছে এবং চীনের এখন ”বিশ্বে ক্ষমতার প্রধান কেন্দ্র” হয়ে দাঁড়ানোর সময় এসেছে।

টেনসেন্ট গেমে অংশগ্রহণকারীদের তার ওই ভাষণের অংশবিশেষ দেখানো হয়েছে যেখানে তিনি তরুণ প্রজন্মের যে ছেলেমেয়েরা বাড়ির মালিক হতে চায় তাদের জন্য আবাসন বাজারে সুরক্ষা দেওয়া নিয়ে কথা বলেছেন অথবা কথা বলেছেন দরিদ্র কৃষকদের জীবনমান উন্নত করার বিষয়ে।

এরপরেই তাদের উৎসাহ দেওয়া হয়েছে ওই বক্তব্য শুনে তারা কত দ্রুত ফোনের স্ক্রিনে ”করতালি” দিতে পারে।

অনেকে বন্ধুবান্ধবদের প্রতিযোগিতায় চ্যালেঞ্জ জানিয়ে করতালি দিয়েছে এবং তারা কে কতবার করতালি দিল তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ফলাও করে প্রকাশ করেছে।

বৃহস্পতিবার টেনসেন্ট জানিয়েছে ব্যবহারকারীরা এ পর্যন্ত ১০০ কোটি বার করতালি দিয়েছে।

চীনে রাজনৈতিক আনুগত্য প্রকাশের জন্য এটাই প্রথম কোন অ্যাপের ব্যবহার নয়।

কম্যুনিস্ট পার্টি আগেও ১০০র বেশি অ্যাপ বাজারে ছেড়েছে যেখানে নানাধরনের ধাঁধা বা প্রশ্ন করে কম্যুনিস্ট মূল্যবোধ তুলে ধরা হয়েছে।

চীনে বড় বড় বিলবোর্ডে এখন দেখা যায় শি জিনপিং-এর মুখ, পর্যটকপ্রিয় এলাকাগুলোয় তার ছবিসহ নানা স্যুভেনির বিক্রি হয়।
শীর্ষ কর্মকর্তারা প্রকাশ্যে তার মতাদর্শের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হন।

মি: শি জিনপিং ইতিমধ্যেই জনগণের কাছে বিপুল জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। ২০১২ সালে ক্ষমতায় আসার পর থেকে দুর্নীতি-দমন সহ তার সুদূরপ্রসারী বহু উদ্যোগ তার নেতৃত্বকে শক্ত ভিত দিয়েছে।

ধারণা করা হচ্ছে আগামী সপ্তাহে কম্যুনিস্ট পার্টি তার রাজনৈতিক মতাদর্শকে ভিত্তি করে নতুন সংবিধান রচনা করবে- যার নাম দেওয়া হয়েছে ”শি জিনপিং মতাদর্শ”।

সেটা হলে মাও জেদং এবং দেং শিয়াওএর মত পূর্ববর্তী নেতাদের সঙ্গে এক কাতারে উন্নীত হবেন শি জিনপিং। -বিবিসি

Mission News Theme by Compete Themes.