ব্রেকিং নিউজ

রাত ১২:৫৮ ঢাকা, বুধবার  ১৯শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

সিদ্দিকুর রহমান
সিদ্দিকুর রহমান, ফাইল ফটো

চিকিৎসা করানোর জন্য সরকারকে ধন্যবাদ, দেশে ফিরে সিদ্দিকুর

ভারতের চেন্নাইয়ে চোখের চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরে চিকিৎসা করানোর জন্য সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন চোখে মারাত্মক আঘাতপ্রাপ্ত সরকারি তিতুমীর কলেজের ছাত্র সিদ্দিকুর রহমান।

আজ শুক্রবার বেলা সোয়া তিনটার দিকে থাইএয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইটে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন তিনি।

সিদ্দিকুরের পরিবারের সদস্যসহ জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের চিকিৎসকরা এসময় তার সাথে ছিলেন। পরে বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে বিমানবন্দরের টার্মিনাল-১ এর ভেতরে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন সিদ্দিকুর রহমান।

সিদ্দিকুর রহমান সাংবাদিকদেরকে জানান, ‘আমি এখন মোটামুটি সুস্থ আছি। পুরোপুরি সুস্থ হতে আরও বেশ কিছু সময় লাগবে।’

এক প্রশ্নের জবাবে সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘আমি পড়াশুনা চালাতে চাই। সেই সাথে সম্মানজনক অবস্থান চাই। আমি অবহেলার পাত্র হতে চাইনা।’

তিনি বলেন, ‘আমি সরকারকে ধন্যবাদ জানাই। আমার সামর্থ্য ছিল না দেশের বাইরে গিয়ে চিকিৎসা করানোর। সরকার আমার পাশে দাঁড়িয়েছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী আমার খোঁজ নিয়েছেন।’

উল্লেখ্য, চিকিৎসক তাকে ৫ থেকে ৬ সপ্তাহের জন্য ব্যবস্থাপত্র লিখে দিয়েছেন বলে জানান, চোখ ভালো হবে কিনা তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। তার বাম চোখের রেটিনার ৯০ শতাংশের বেশি নষ্ট হয়ে গেছে। আর ডান চোখ আগেই নষ্ট হয়েছে বলে জানাগেছে।

সিদ্দিকুর রহমান বলেন,‘যেহেতু আমি একজন ভুক্তভোগী। সেজন্য যারা ঘটনার সাথে জড়িত তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করছি।’

রুটিনসহ পরীক্ষার তারিখ ঘোষণার দাবিতে গত ২০ জুলাই শাহবাগে আন্দোলনে গিয়ে চোখে মারাত্মক আঘাত পান সরকারি তিতুমীর কলেজের ছাত্র সিদ্দিকুর রহমান। জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে গত ২৭ জুলাই উন্নত চিকিৎসার জন্য তিনি ভারতে যান। ভারতের চেন্নাইয়ের শংকর নেত্রালয়ে সিদ্দিকুরের চিকিৎসার ব্যবস্থা করে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়।