Press "Enter" to skip to content

‘চাল বিক্রিতে অনিয়ম ও দুর্নীতি হলে মামলা’

রাজশাহী,  দরিদ্র পরিবারগুলোর মাঝে ১০ টাকা কেজি মূল্যে চাল বিক্রি কর্মসূচিতে কোন রকম অনিয়ম হলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে সতর্ক করে দিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম।

মন্ত্রী আজ নগরীর নানকিং দরবার হলে খাদ্য অধিদফতর ও জেলা প্রশাসন আয়োজিত খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি শীর্ষক এক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতাকালে একথা বলেন।

কামরুল ইসলাম বলেন, ১০ টাকা কেজি চাল বিক্রি কর্মসূচিতে অনিয়ম ও দুর্নীতির সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। কেউই রেহাই পাবে না। অনিয়মের সঙ্গে জড়িত খাদ্য কর্মকর্তা ও ডিলারদের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনে মামলা দায়ের করা হবে।

তিনি বলেন, সরকার খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি মনিটরিং করছে। ইতোমধ্যে এ কর্মসূচিতে দুর্নীতির সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের এবং ৯ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

জাতীয় সংসদে খাদ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি আবদুল ওয়াদুদ দারা এমপি ও রাজশাহী বিভাগীয় কমিশনার আবদুল হান্নান অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন। এতে সভাপতিত্ব করেন রাজশাহীর জেলা প্রশাসক কাজী আশরাফ উদ্দিন।

খাদ্যমন্ত্রী বলেন, সরকার দেশের ৫০ লাখ অতিদরিদ্র পরিবারের মাঝে ১০ টাকা কেজিতে চাল বিক্রি করছে। প্রতি বছর মার্চ ও এপ্রিল এবং সেপ্টেম্বর, অক্টোবর ও নভেম্বর এই ৫ মাস প্রত্যেক পরিবারকে মাসে ৩০ কেজি করে চাল দেয়া হবে।

আওয়ামী লীগ সরকারের নির্বাচনী অঙ্গীকার অনুসারে এই প্রথমবারের মতো ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ করা হচ্ছে।

কামরুল বলেন, দরিদ্র পরিবারগুলোর তালিকা তৈরির সময় শতভাগ স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে হবে এবং কোন রকম অনিয়ম বরদাশত করা হবে না। এক্ষেত্রে যেকোন ধরনের অনিয়মের বিরুদ্ধে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন মন্ত্রী।

শেয়ার অপশন:
Don`t copy text!