Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ১:৫৭ ঢাকা, বুধবার  ২১শে নভেম্বর ২০১৮ ইং

কুপিয়ে হত্যা
কুপিয়ে হত্যা

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ছাত্রী কনিকা ঘোষকে কুপিয়ে হত্যা

সহপাঠী তিন ছাত্রীর সঙ্গে প্রাইভেট পড়ে বাড়ি ফিরছিল কনিকা ঘোষ (১৪)। কিন্তু পথে আচমকা তাদের ওপর চড়াও হয় এক বখাটে আব্দুল মালেক (২৮)।দেশীয় অস্ত্র হাসুয়া দিয়ে সমানে কোপাতে থাকে ছাত্রীদের। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় কনিকা ঘোষ। অন্যরাও গুরুতর জখম হয়।শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে মহীপুর কলেজ মোড়ে ছাত্রীদের ওপর এ হামলার ঘটনা ঘটে।

নিহত কনিকা ঘোষের বাবার নাম লক্ষণ ঘোষ। সে সদর উপজেলার দিয়াড়দভাইনগর এলাকায় নানা বাড়িতে থেকে পড়াশোনা করতো। সে মহিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী।

আর আহতরা হল- তানজিমা (১৪), অরিন আফরোজ (১৪) ও মরিয়ম (১৫)। তাদের বাড়ি সদরের বেহুলা, খরমবাড়ি ও দিয়াড়দভাইনগর এলাকায় এবং তারাও একই স্কুলের শিক্ষার্থী।

তাৎক্ষণিকভাবে এই হামলার কারণ জানা যায়নি। তবে ঘটনার পর এলাকাবাসী ঘাতক আব্দুল মালেককে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। তিনি ভালুকাদিয়াড় এলাকার আব্দুল লতিফের ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সকাল ১০টার দিকে মহীপুর বাজার থেকে প্রাইভেট পড়ে বাড়ি ফিরছিল ওই চার ছাত্রী। পথে বখাটে আব্দুল মালেক পেছন থেকে ধাওয়া করে তাদের ওপর চড়াও হয়।

এ সময় দেশীয় অস্ত্র হাসুয়া দিয়ে ছাত্রীদের কুপিয়ে জখম করে আব্দুল মালেক। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যায় কনিকা ঘোষ।

আহতদের আর্তচিৎকারে স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

এ ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।