Press "Enter" to skip to content

চলমান অভিযান অব্যাহত থাকবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, যতদিন পর্যন্ত ঘুষ, সন্ত্রাস, ক্যাসিনো ও মাদকসহ সামাজিক অপরাধ সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত চলমান অভিযান অব্যাহত থাকবে।

আজ সংসদে জাতীয় পার্টির সদস্য রুস্তম আলী ফরাজীর উত্থাপিত ‘সংসদের অভিমত এই যে, দেশে ঘুষ, সন্ত্রাস, ক্যাসিনো (জুয়া) ও মাদকসহ সামাজিক অপরাধের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান সারা বছর অব্যাহত রাখা হোক শীর্ষক সিদ্ধান্ত প্রস্তাবের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করা হয়েছিল। জনগণের সহযোগিতায় আমরা সন্ত্রাস-জঙ্গি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছি। পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রী মাদকের বিষয়ে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণের জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন। মাদক আইন যুগোপযোগী করে মাদকের ভয়াবহ ছোবল থেকে দেশের যুব সমাজকে রক্ষার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। মানিলন্ডারিং রোধে আইনের সংশোধন এবং ডিজিটাল সিকিউরিটি এ্যাক্ট -২০১৮ প্রণয়নসহ অপরাধ দমনে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে ৮টি জঙ্গি সংগঠনকে গেজেট প্রকাশের মাধ্যমে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত সিটিটিসি হাই রিস্ক অপারেশন পরিচালনা করে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড ও সংশ্লিষ্ট মাস্টারমাইন্ডদের আইনের আওতায় এনেছে। এ ছাড়া সাইবার অপরাধীসহ অন্যান্য অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা হয়েছে।

আসাদুজ্জামান খান বলেন, দেশের সংবিধানে যেহেতু জুয়ার বিষয়টি নিষিদ্ধ রয়েছে, সেহেতু এ বিষয়ে আইনের সংশোধন করে শাস্তির বিষয়টি যুগোপযোগি করা হবে। ক্যাসিনো পরিচালনার অপরাধে ইতোমধ্যে অনেককে গ্রেফতার করা হয়েছে। এই অভিযান অব্যাহত থাকবে। এগুলো থেকে রক্ষা করতে না পারলে আমাদের যুব সমাজ হারিয়ে যাবে। অপরাধী যেই হোক কাউকে ছাড় দেয়া হচ্ছে না এবং হবেও না।

শেয়ার অপশন: