ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৭:১২ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ২০শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের দফায় দফায় সংঘর্ষে ওসিসহ আহত ২০

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে দু’গ্রুপের দফায় দফায় সংঘর্ষে হাটহাজারী থানার ওসি ও ছাত্রলীগের বিশ্ববিদ্যালয় শাখা সভাপতিসহ ২০ জন আহত হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ শতাধিক রাউন্ড গুলিবর্ষণ করেছে।

সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে এ সংঘর্ষ শুরু হয়। দুপুর দেড়টায় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে ক্যাম্পাসজুড়ে বেলা আড়টার দিকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত উত্তেজনা অব্যাহত থাকে।

এদিকে সংঘর্ষে আহতদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসাপাতালে পাঠানো হয়েছে। আহতদের মধ্যে শফিউল আলম (বাংলা ৩য় বর্ষ), আসিফ আবু নাইম (ইংরেজি ৮-৯ সেশন), কৌশিক বিশ্বাস (এমবিএ ৮-৯ সেশন) ও ইমান ধর রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগ (১৪-১৫ সেশন)-এর পরিচয় পাওয়া গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আধিপত্য বিস্তারের ঘটনাকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রামের মেয়র আ জ ম নাছির সমর্থিত ছাত্রলীগ এবং প্রাক্তন মেয়র মহিউদ্দিন চৌধুরী সমর্থিত ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষ শুরু হয়। ছাত্রলীগের এক গ্রুপ শাহ আমানত হল এবং অপর গ্রুপ শাহজালাল হলে অবস্থান নিয়ে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। উভয় গ্রুপের কর্মীদের ধারালো অস্ত্রসহ বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়।

সংঘর্ষে ছাত্রলীগের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখা সভাপতি আলমগীর টিপু ও হাটহাজারী থানার ওসি মো. ইসমাঈলসহ ২০ জন আহত হন।

আহত ওসি ইসমাঈল গণমাধ্যমকে জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ শতাধিক রাউন্ড গুলিবর্ষণ করে। তিনি জানান, ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।