Press "Enter" to skip to content

গ্রেফতারকৃত বুদ্ধিজীবীরা বাড়িতে থাকবে : ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

ভারতে গ্রেফতারকৃত পাঁচ জন বামপন্থী বুদ্ধিজীবীকে পুলিশ হেফাজতে নয় বরং বাড়িতে নজরবন্দী রাখার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। মাওবাদীদের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার সন্দেহে গত মঙ্গলবার তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ। এ নিয়ে ভারতজুড়ে তীব্র সমালোচনার মুখে গতকাল হস্তক্ষেপ করেন দেশটির সর্বোচ্চ আদালত।

আদালত বলেছেন, বিরুদ্ধ মত গণতন্ত্রের ‘সেফটি ভালভ’। এটা না থাকলে প্রেশার কুকারটিই ফেটে যাবে। আগামী ৬ সেপ্টেম্বর পরবর্তী শুনানির আগ পর্যন্ত তাদের বাড়িতে রাখার নির্দেশ দেন।

বুদ্ধিজীবীদের গ্রেফতারের বিরুদ্ধে এরই মধ্যে ভারতে প্রতিবাদ শুরু হয়েছে। বিরোধী দল অধিকার সংগঠনগুলোর অভিযোগ তুলে বলছে, সমালোচনা সহ্য করছে না সরকার। তাই বিরুদ্ধে মত দমন করতে গ্রেফতারের পথ বেছে নেওয়া হয়েছে।

ভারতে বেশ কিছুদিন থেকেই হিন্দুত্বের ঝাণ্ডাধারী জাতীয়তাবাদীদের সঙ্গে বহুত্ববাদী ও বাক স্বাধীনতার পক্ষের শক্তির বিরোধ প্রকাশ্যে এসেছে। শুরুতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে এ নিয়ে বিতর্ক সীমাবদ্ধ থাকলেও এটি এখন রাজপথের আন্দোলনে গড়াচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার ষড়যন্ত্রে যোগ এবং মাওবাদী-ঘনিষ্ঠতার অভিযোগে মঙ্গলবার এই পাঁচ সমাজকর্মীকে গ্রেফতার করেছিল পুনে পুলিশ। তারা হলেন- সাংবাদিক ও রাজনৈতিক কর্মী গৌতম নওলাখা, ট্রেড ইউনিয়ন নেতা সুধা ভরদ্বাজ, বামপন্থী কবি ভারাভারা রাও, মানবাধিকার বিষয়ক আইনজীবী ভার্নন গঞ্জালভেস এবং লেখক ও আইনজীবী অরুণ ফেরেরা। ভারতের রাজনৈতিক মহলে তারা প্রত্যেকেই সুপরিচিত। তাদের মধ্যে কয়েকজনকে এর আগেও গ্রেফতার করা হয়েছিল।

সরকার জনগণের কণ্ঠরোধের চেষ্টা করছে বলে অভিযোগকারী পক্ষটির দাবি, সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতার ওপরও নগ্নভাবে হস্তক্ষেপ করতে শুরু করেছে বিজেপি সরকার। সরকারের ভাবমূর্তির অনুকূলে যায় না এমন খবর প্রকাশ করায় শীর্ষ পর্যায়ের বেশ কয়েকজন সাংবাদিককে চাকরি হারাতে হয়েছে।

শেয়ার অপশন:
Don`t copy text!