ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ১:০৮ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

গ্রিসের ঋণ সংকট : ৭ই জুলাই পর্যন্ত দেশটির সব ব্যাংক বন্ধ

গ্রিস সরকার নিশ্চিত করেছে, সারা সপ্তাহ দেশটির ব্যাংকগুলো বন্ধ থাকবে। ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক (ইসিবি) জরুরি তহবিল বৃদ্ধি না করার সিদ্ধান্ত গ্রহণের পর গ্রিস সরকার এ পদক্ষেপ নিয়েছে।
সোমবার এক ডিক্রিতে বলা হয়েছে, তারল্য সংকটের কারণে অর্থনৈতিক ব্যবস্থার সুরক্ষার এটা খুবই জরুরী। ব্যাংক বন্ধ থাকার এই সময়ে এটিএম বুথ থেকে দিনে কেবল ৬০ ইউরো তোলা যাবে। তবে বিদেশি ব্যাংকের কার্ড হোল্ডারদের ক্ষেত্রে এই নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য হবে না।
গ্রিসকে আগামীকাল মঙ্গলবারের মধ্যে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ)’র এক দশমিক ৬ বিলিয়ন ইউরোর ঋণ অবশ্যই পরিশোধ করতে হবে অথবা দেশটিকে একক মুদ্রা ও ইইউ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার ঝুঁকির মুখে পড়তে হবে।
গ্রিসের এ সংকটের প্রেক্ষাপটে সোমবার সকালে লন্ডন, প্যারিস ও ফ্রাঙ্কফুটে পুঁজি বাজার দারুণভাবে পড়ে গেছে। এর আগে একই কারণে এশিয়ার পুঁজি বাজার পড়ে যায়। এছাড়া ইউরোর মূল্য মার্কিন ডলারের বিপরীতে ২ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে।
এদিকে গ্রিসের অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার কর্মসূচির সময়সীমা বাড়ানোর প্রস্তাব নিয়ে শনিবার গ্রিস ও ইউরোজানের দেশগুলোর মধ্যে আলোচনা কোন চুক্তি ছাড়াই শেষ হয়েছে। এ প্রেক্ষাপটে প্রধানমন্ত্রী অ্যালেক্সিস সিপরাস আকস্মিকভাবে আগামী ৫ জুলাই দাতাদের শর্তের ওপর এক গণভোটের ডাক দিয়েছেন।
ব্যাংক বন্ধ সংক্রান্ত ডিক্রি সোমবার সরকারি গেজেটে প্রকাশিত হয়েছে। এর আগে রোববার গ্রিক মন্ত্রিসভা এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়।
সোমবারের ডিক্রিতে পুরো সপ্তাহজুড়ে ব্যাংক বন্ধের পাশাপাশি এথেন্স পুঁজি বাজারও বন্ধ থাকার উল্লেখ রয়েছে।
এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী সিপরাস বলেছেন, পুঁজি নিয়ন্ত্রণ করার জন্য সরকার এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গ্রিসের সরকারি কর্মকর্তারা নিশ্চিত করেছেন, আগামী ৭ই জুলাই পর্যন্ত দেশটির সব ব্যাংক বন্ধ থাকবে।
তবে সোমবার বিকেল থেকে দেশটির ব্যাংকগুলোর এটিএম বুথ খোলা থাকবে। কিন্তু প্রতিদিন ৬০ ইউরোর বেশি টাকা তোলা যাবে না।