Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ২:২৭ ঢাকা, শনিবার  ১৭ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

গ্রিসের অর্থমন্ত্রীর পদত্যাগ, শেয়ারে বাজারে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া

gri6-7

গণভোটে জনগণ তার অবস্থান সমর্থণ করলেও হঠাৎ পদত্যাগ করেছেন গ্রিসের অর্থমন্ত্রী

গ্রিসের জনগণ রোববারের গণভোটে কৃচ্ছতার শর্ত খারিজ করে দেয়ার পরও অকস্মাৎ পদত্যাগ করেছেন সেদেশের অর্থমন্ত্রী ইয়ানিস বারুফাকিস।

ঋণদাতাদের শর্তের বিরুদ্ধে তার কট্টর অবস্থানের জন্য ইউরোজোনের বহু দেশের কাছে বিশেষ করে জার্মানির কাছে অপ্রিয় হয়ে উঠেছিলেন মি বারুফাকিস।

সে কারণে, তার এই অকস্মাৎ পদত্যাগকে মীমাংসার জন্য গ্রিসের আগ্রহের প্রতিফলন বলে অনেক পর্যবেক্ষক ব্যাখ্যা করছেন।

গণভোটে ফলাফলের পর গ্রিসের সরকারে পক্ষ থেকে বার বার আশ্বস্ত করা হচ্ছে ইউরো মুদ্রা ত্যাগ করার কোনও ইচ্ছা তাদের নেই, তাদের আপত্তি শুধু কিছু কঠোর শর্ত নিয়ে।

গ্রিসের কেন্দ্রীয় ব্যাংক জরুরী ঋণ নিয়ে আলোচনায় বসতে দু-একদিনের মধ্যে ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক বা ইসিবির কাছে প্রস্তাব পাঠাবে।

তবে এই আলোচনায় কতদূর ইতিবাচক ফল হবে তা নিয়ে জার্মানি শঙ্কা জানিয়েছে।

জার্মানির ক্রদ্ধ ডেপুটি চ্যান্সেলর সিগমার গ্যাব্রিয়েল মন্তব্য করেছেন, “প্রধানমন্ত্রী সিপ্রাস গ্রিস ও ইউরোপের মধ্যে সেতু দুমড়ে মুচড়ে দিয়েছেন।”

আশঙ্কা করা হচ্ছে, ইসিবির কাছে থেকে দ্রুত টাকা না পেলে গ্রিসের ব্যাংকগুলোর ভাণ্ডার শূন্য হয়ে যাবে।

বাজারে দরপতন

ওদিকে, গ্রিসের গণভোটে ফলাফলের পরপরই বাজারে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া পড়েছে।

সোমবার লেনদেন শুরু হওয়ার পরপরই ইউরোপ ও এশিয়ায় শেয়ারের দাম পড়ে গেছে। মার্কিন ডলার ও ব্রিটিশ পাউন্ডের বিপরীতে ইউরো’র বিনিময় মূল্য যথাক্রমে ০.৪ এবং ০.৫ শতাংশ কমেছে।

জাপানের নিকেই সূচক দুই শতাংশ নেমে গেছে। প্রায় একই হারে দাম পড়ে গেছে প্যারিস এবং ফ্রাঙ্কফুর্টের শেয়ার বাজারেও।

ব্রিটেন ইউরোজোনের অংশ না হলেও, লন্ডনের ফুটসি সূচক সকালেই এক শতাংশ পড়ে যায়।

ফরাসী ব্যাংক বিএনপি পারিবা’র গবেষক ফিলিপ গিজেলস বিবিসিকে বলেছেন, “ইউরো জোন থেকে গ্রিসের বেরিয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা যে বাড়ছে তা অস্বীকার করার উপায় নেই … ঝুঁকিপূর্ণ সম্পদের দাম পড়তির দিকে, টাকা-পয়সা নিরাপদে সরিয়ে নেওয়ার প্রবণতা দেখা দিচ্ছে।”

মি গিজেলস বলেন, “মীমাংসা আলোচনা হবে কিন্তু ফলাফল অনিশ্চিত”।

মুদ্রা ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান ফরেক্সডটকমের গবেষণা পরিচালক ক্যাথলিন ব্রুকস্‌ সাবধান করেছেন ইউরোর বিনিময় মূল্য আরও পড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা প্রবল।