ব্রেকিং নিউজ

সকাল ৬:৫০ ঢাকা, মঙ্গলবার  ২৪শে এপ্রিল ২০১৮ ইং

গ্রামীণ ফোনের গ্রাহক সংখ্যা ৫ কোটি

শীর্ষ মিডিয়া ১৪ অক্টোবর ঃ   আগামী পাঁচ বছরে গ্রামীণ ফোনের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যাও ৫ কোটিতে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা , প্রতিষ্ঠার ১৭ বছরের মাথায় দেশের প্রথম অপারেটর হিসাবে পাঁচ কোটি গ্রাহকের মাইলফলক অতিক্রম করল গ্রামীণফোন। প্রতিষ্ঠানটির এই গ্রাহক সংখ্যা দেশের মোট মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর প্রায় ৪২ শতাংশ। মঙ্গলবার রাজধানীর একটি হোটেলে এক অনুষ্ঠানে গ্রামীণফোনের সিইও বিবেক সুদ বলেন, আজ আমাদের এই মাইলফলক উদযাপন আমাদের গ্রাহকদের নিয়েই। এ অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে গ্রামীণফোনের প্রথম গ্রাহক লাইলি বেগম এবং ৫ কোটিতম গ্রাহক আরিফকে জানানো হয় বিশেষ সম্মাননা।

বিবেক সুদ বলেন, আমরা যখন এই যাত্রা শুরু করেছিলাম, তখন আমাদের অঙ্গীকার ছিল গ্রাহকদের জন্য আপসহীন সেবা প্রদান করা। আমি আজ আনন্দিত, কারণ আমরা আমাদের অঙ্গীকার থেকে বিচ্যুত হইনি। এখনও গ্রাহকদের জন্য সর্বোত্তম সেবা দেয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। গ্রাহক সেবাই আমাদের প্রধান লক্ষ্য।

১৯৯৭ সালের ২৬ মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসে যাত্রা শুরু করে গ্রামীণফোন। বর্তমানে দেশের সর্ববৃহ এবং সবচেয়ে বিস্তৃত নেটওয়ার্ক রয়েছে গ্রামীণফোনের।

সবার জন্য ইন্টারনেট কর্মসূচির আওতায় গ্রামীণফোন প্রথম অপারেটর হিসেবে দেশের ৬৪ জেলায় থ্রিজি সেবা পৌঁছে দিয়েছে।

দেশজুড়ে ৮ হাজার ৬০০ বেজ স্টেশনের মাধ্যমে মোবাইল ফোন সেবা দিচ্ছে গ্রামীণফোন, যার মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠানটি দেশের মোট জনসংখ্যার ৯৯ শতাংশকে তাদের নেটওয়ার্কের আওতায় আনতে পেরেছে। পাঁচ কোটি গ্রাহকের অপারেটর গ্রামীণফোনের ৫৫ দশমিক ৮ শতাংশ শেয়ারের মালিক নরওয়েজীয় কোম্পানি টেলিনর।

বিবেক সুদ বলেন, টেলিনর ১৩টি দেশে তাদের কার্যক্রম চালাচ্ছে, এর মধ্যে গ্রামীণফোনের গ্রাহক সংখ্যাই সবচেয়ে বেশি।

এ মাইলফলক উদযাপন উপলক্ষে গ্রাহকদের জন্য আকর্ষণীয় সব অফারের কথাও অনুষ্ঠানে তুলে ধরেন প্রতিষ্ঠানের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা (সিএমও) অ্যালান বনকে।

তিনি জানান, গ্রামীণফোন থ্রিজি গ্রাহকেরা তাদের মোবাইল ডিভাইসে বর্তমান ইন্টারনেট প্যাকেজে কোনো বাড়তি খরচ ছাড়াই দ্বিগুণ গতির ইন্টারনেট উপভোগ করতে পারবেন।