ব্রেকিং নিউজ

দুপুর ২:১৯ ঢাকা, বৃহস্পতিবার  ২০শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

মারজান
নুরুল ইসলাম ওরফে মারজান

গুলশান হামলার মাসটারমাইন্ড মারজান এর ‘আসল পরিচয়’

রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার মাসটারমাইন্ড জেএমবি কমান্ডার মারজানের পুরো পরিচয় পাওয়া গেছে।

মারজানের পুরো নাম নুরুল ইসলাম। তার গ্রামের বাড়ি পাবনার আফুরিয়ায়। সে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগের ছাত্র।

তার বাবা-মা জানায়, প্রায় আট মাস ধরে পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন মারজান।

জঙ্গি সংশ্লিষ্টতার বিষয়টি প্রকাশ হওয়ার পর মারজানের বাবা-মা মানসিকভাবে ভেঙে পড়েন। সাংবাদিকদের কাছে তারা কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, ‘আমাদের ছেলে যদি এমন ঘৃণ্য কাজের সঙ্গে জড়িত থাকে তাহলে অবশ্যই তার শাস্তি হোক। যারা তাকে এ পথে নিয়ে গেছে তাদেরও শাস্তি চাই।’

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার সকালে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার ও কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে হামলার মূল দায়িত্বে থাকা আরেক ব্যক্তিকে চিহ্নিত করা হয়েছে। তার সাংগঠনিক নাম মারজান। তার ছবি পাওয়া গেছে। নিজের ফেসবুকে মারজান গুলশান হামলার ছবি আপলোড করেছিল।

মনিরুল ইসলাম জানান, গোপন টেক্সট বা আপসের মাধ্যমে গুলশান হামলার ছবি মারজানের কাছে পাঠানো হয়েছিল। সে তা ওপেন করেছিল। পুলিশ এক জঙ্গির মোবাইল থেকে তা উদ্ধার করেছে।

মারজান সম্পর্কে জানা যায়, সে উগ্রবাদী চিন্তার ধারক। জেএমবির হাই প্রোফাইল জঙ্গিদের সঙ্গে তার রয়েছে নিবিড় যোগাযোগ।

গুলশান ও শোলাকিয়া হামলার পর এসব জঙ্গির সঙ্গে তার বৈঠকও হয়। পরবর্তী হামলার জন্য ছকও তৈরি করেছিল। কিন্তু রাজধানীর কল্যাণপুরে আইনশৃংখলা বাহিনীর অভিযানে তাদের সেই ছক ভেস্তে গেছে। গুলশান হামলার ঘটনার তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে এসব তথ্য।

গোয়েন্দাদের অনুসন্ধানে জানা যায়, ২৪ থেকে ২৬ বছর বয়সী মারজান ভারি অস্ত্র চালাতে পারদর্শী। সে নিজেও হাই প্রোফাইল তালিকার একজন জঙ্গি। আটক জঙ্গি জাহাঙ্গীর ওরফে রাজীব ওরফে সুভাস গান্ধী জিজ্ঞাসাবাদে মারজান সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য দিয়েছে গোয়েন্দাদের।