Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ২:১১ ঢাকা, রবিবার  ১৮ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন

গাজীপুর সিটিতে ভোট গ্রহণের প্রস্তুতি সম্পন্ন

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠানের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। আগামীকাল সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা বিভিন্ন কেন্দ্রে অবস্থান নিয়েছেন।

আজ সকাল থেকেই সিটি কর্পোরেশনের ৫৭টি ওয়ার্ডে ৪২৫টি ভোট কেন্দ্রে ব্যালট পেপার ও অন্যান্য নির্বাচনী সরমঞ্জাম প্রেরণ করা হয়।
প্রিজাইডিং অফিসারের নেতৃত্বে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সহযোগিতায় ইতোমধ্যে অধিকাংশ কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম পৌঁছানো হয়েছে বলে রিটার্নিং অফিসার কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে।

নজিরবিহীন কঠোর নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে মঙ্গলবার ২৬ জুন সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোট গ্রহণ চলবে বলে গাজীপুর সিটির নির্বাচনের রিটানিং অফিসার রকিব উদ্দিন মন্ডল জানান।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনে ৫৭টি ওয়ার্ড কাউন্সিলরের মধ্যে একজন ওয়ার্ড কাউন্সিলর বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। তাই ৫৭টির মধ্যে ৫৬টি ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ২৫৪জন ও সংরক্ষিত ১৯ মহিলা ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে ৮৪জন এবং ১টি মেয়র পদের জন্য ৭ জন প্রার্থী এ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছে। সর্বমোট ৩৪৫জন প্রার্থী গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বলে রিটার্নিং অফিসার জানান।

তিনি বলেন, সিটি কর্পোরেশনের ৫৭টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার সংখ্যা ১১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৭জন। এরমধ্যে ৫ লাখ ৭৯ হাজার ৯৩৫ জন পুরুষ এবং ৫ লাখ ৬৭ হাজার ৮০১ জন মহিলা ভোটার।

ইতোমধ্যে নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ ভোট গ্রহণের জন্য ২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। গাজীপুর পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ জানান, নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু করতে প্রায় ১২ হাজার র‌্যাব, পুলিশ, আনসার সদস্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

তিনি জানান, নগরীর ৫৭টি ওয়ার্ডে পুলিশ ও আনসারের সমন্বয়ে ৫৭টি স্ট্রাইকিং ফোর্স ও সংরক্ষিত আসনে ২০টি স্ট্রাইকিং ফোর্স থাকবে। ইতোমধ্যে র‌্যাব মোতায়েন শুরু করেছে। ৫৭টি ওয়ার্ডে ৫৭টি এবং অতিরিক্ত একটিসহ মোট ৫৮টি টিম মোতায়েন থাকবে। প্রতি দুইটি ওয়ার্ডে এক প্লাটুন করে মোট ২৯ প্লাটুন বিজিবি দায়িত্ব পালন করবে। এদের মধ্যে ১২ প্লাটুন জয়দেবপুর, বাসন চান্দনা চৌরাস্তা ও কাউলতিয়া এলাকায় দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়া ৭ প্লাটুন কোনাবাড়ি ও কাশিমপুর এলাকায়, ১০ প্লাটুন টঙ্গী এলাকায় থাকবেন। এছাড়া পুলিশ এপিবিএন ও ব্যাটালিয়ান আনসার সমন্বয়ে ৫৭টি ওয়ার্ডে ৫৮টি মোবাইল ফোর্স, ২০টি স্ট্রাইকিং ফোর্স নিয়োজিত থাকবে।

গাজীপুর জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির জানান, নির্বাচনের আগে ও পরে চার দিন ৫৭টি ওয়ার্ডে একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত থাকবেন। আরো ১০ জন অতিরিক্ত হিসেবে সর্বমোট ৬৭ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোতায়েন থাকবেন। সিটি কর্পোরেশনের প্রতি তিনটি ওয়ার্ডের জন্য একজন করে মোট ১৯জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত থাকবেন। তারা ২৪ জুন থেকে ২৭ জুন পর্যন্ত নগরীতে দায়িত্ব পালন করবেন। -বাসস