Sheersha Media

ব্রেকিং নিউজ

রাত ৮:২১ ঢাকা, শুক্রবার  ১৬ই নভেম্বর ২০১৮ ইং

গণতন্ত্রের স্বার্থেই প্রস্তাবিত তথ্য অধিকার আইনে কিছু বিধি-নিষেধ-তথ্যমন্ত্রী

শীর্ষ মিডিয়া ২১ অক্টোবর ঃ   তথ্য অধিকার আইনের ‘সেকশন-৭’ এর ওপর বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান ম্যানজমেন্ট অ্যান্ড রিসোর্সেস ডেভেলপমেন্ট ইনিশিয়েটিভ (এমআরডিআই) ও মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের এক প্রতিবেদন প্রকাশ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি বলেন , দেশের গণতন্ত্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, সমাজ, নারী ও শিশুর নিরাপত্তা ও সম্মান রক্ষা এবং শান্তি বাজায় রাখতেই প্রস্তাবিত তথ্য অধিকার আইনে কিছু বিধি-নিষেধ রাখা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ।
অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন সাবেক তথ্য কমিশনার আবু তাহের, তথ্য কমিশনার নেপাল চন্দ্র বিশ্বাস, মানুষের জন্য ফান্ডেশেনর নির্বাহী পরিচালক শাহিন আনাম, আইন সচিব আবু সালেহ শেখ মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম ও এমআরডিআই নির্বাহী পরিচালক হাসিবুর রহমান প্রমুখ। ।  রাজধানীর ব্র্যাক ইন সেন্টারে বেলা ১১টায় এ অনুষ্ঠান শুরু হয়ে দুপুরে শেষ হয়।তথ্যমন্ত্রী বলেন, তথ্য অধিকার আইন একদিকে তথ্য লুকানোর খাঁচা থেকে প্রতিষ্ঠানের তথ্য প্রকাশে ভূমিকা রাখছে, অন্যদিকে অবাধ তথ্য প্রবাহ সচল রেখে জনগণের তথ্য পাওয়ার অধিকারকে সমুন্নত রাখছে।
তিনি বলেন, কিন্তু যেসব তথ্য ব্যক্তি মানুষের নিরাপত্তা ও গোপনীয়তা বিনষ্ট করে এবং রাষ্ট্রের সার্বভৌমত্বের ভারসাম্যহীনতা তৈরি করে সেসব তথ্য দেওয়া যায় না।   আমরা জানি, সংসদীয় গণতন্ত্রে জাতীয় সংসদের স্থায়ী কমিটির বৈঠকগুলো কতো জরুরি। কিন্তু এখনও আমরা কমিটির বৈঠকগুলো জনসম্মুখে করতে পারছি না। এসব বৈঠকে সরকারি ও বিরোধী দলীয় সংসদ সদস্যরা বিভিন্ন বিষয়ে পক্ষ-বিপক্ষ চিন্তা না করেই বিতর্ক করেন। কিন্তু অধিবেশনে গিয়ে ঠিকই দলীয় মতামতের ভিত্তিতে ভোট দেন। এটা কেবল অন্যায়ই নয়, অনৈতিকও।   এ আইন তথ্য সংকুচিত করার জন্য নয়, তথ্যের অধিকার নিশ্চিতেরও। তবে আইন সব সময়ই যুগোপোযোগী করে হালনাগাদের প্রয়োজন পড়ে। এ ক্ষেত্রেও যেসব প্রতিবন্ধকতা দেখা দিয়েছে, তা সমাধান করে আইন সংশোধন করার উদ্যোগ নেওয়া হবে।