ব্রেকিং নিউজ

ভোর ৫:১২ ঢাকা, শনিবার  ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং

‘গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠক জাকারিয়া বাবু হত্যায় জড়িত ৩ জন গ্রেফতার’

হত্যাকাণ্ডের প্রায় ২৬ মাস পর বগুড়ায় গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠক প্রভাষক জাকারিয়া বাবু হত্যাকাণ্ডে জড়িত মূল ঘাতকসহ তিন জনকে গ্রেফতার করেছে জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা এই হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে বলেও দাবি করছে পুলিশ।
স্থানীয় ছাত্রশিবির নেতাদের পরিকল্পনায় অংশ হিসেবেই জাকারিয়া বাবুকে হত্যা করা হয়েছে – পুলিশের কাছে এমনটাই স্বীকারোক্তি দিয়েছে গ্রেফতারকৃতরা। শুক্রবার রাতে বগুড়া চকসূত্রাপুর, সবুজবাগ ও জামিল নগর থেকে এ হত্যাকাণ্ডের মূল ঘাতকসহ তার সহযোগী ২ ঘাতককে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে জেলার সারিয়াকান্দি উপজেলার নারচী তরফদার পাড়া গ্রামের মো. ইব্রাহীম ফকিরের ছেলে মাইনুর ইসলাম ফকির (২১) শিবগঞ্জ উপজেলার সাত আনা কিচক গ্রামের মোশাররফ হোসেনের ছেলে মহসিন আলী (২১) এবং সদরের সবুজবাগ এলাকার মো. বেলায়েত হোসেনের মো. হাবিবু নাঈম (১৯)।
শনিবার দুপুরে নিজ কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার আসাদুজ্জামান জানান, ২০১৩ সালের ৯ ডিসেম্বর রাতে শহরের রেলগেট এলাকায় বাড়ি ফেরার পথে সন্ত্রাসীদের ধারালো অস্ত্রের এলোপাথাড়ি আঘাতে খুন হন বগুড়া গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠক ও শেরপুর ডিগ্রি কলেজের প্রভাষক জাকারিয়া বাবু। আলোচিত এই হত্যাকাণ্ডের পর দীর্ঘদিন ধরে জড়িতদের চিহ্নিত করতে তদন্ত করছিলো পুলিশ। এর একপর্যায়ে গত শুক্রবার শহরের সবুজবাগ ও জামিলনগর এলাকা থেকে মাইনুর, মহসিন ও নাঈমকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় পুলিশ।
পুলিশ সুপার দাবি করেন, স্থানীয় ছাত্রশিবির নেতাদের পরিকল্পনায় বাবু হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে গ্রেফতার হওয়া ৩ জন।
পুলিশ সুপার আরো জানান, গ্রেফতারকৃতদের আদালতে সোপর্দ করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন জানিয়েছে পুলিশ।
উল্লেখ্য, ২০১৩ সালের ৯ ডিসেম্বর রাত অনুমান ৯ টায় বগুড়া শহরস্থ সেলিম হোটেলের সামনে কয়েকজন সন্ত্রাসী কর্তৃক বগুড়া গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠক ও শেরপুর ডিগ্রী কলেজের গণিত বিভাগের প্রভাষক জিয়া উদ্দিন জাকারিয়া বাবু (৪৭) কে কুপিয়ে নির্মম ও নৃশংসভাবে হত্যা করে। নিহত প্রভাষক জাকারিয়া বাবু বগুড়া সদরের গোকুল দক্ষিণপাড়া গ্রামের মৃত ইদ্রিস আলীর ছেলে। ঘটনার দুই দিন পর ভিকটিমের ছোট ভাই সামছুদ্দিন সোলায়মান সাধু বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামীদের বিরুদ্ধে বগুড়া সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।